এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ ৫ করিমন যাত্রী গুরুতর জখম

দামুড়হুদার চিৎলা-জুড়ানপুর সড়কে ট্রাক ও করিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষ

 

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদায় ট্রাক ও করিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ভয়াবহ এ সড়ক দুর্ঘটনায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ ৫ জন গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। এর মধ্যে দু এইচএসসি পরীক্ষার্থী হোগলডাঙ্গার রুপালী (১৮) ও নাহিদ (১৯) চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। রুপালীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। আহত ৫ জনের মধ্যে করিমনচালক হোগলডাঙ্গার রফিকুলসহ অপর দু যাত্রী নূর ইসলাম (৬০) ও জবেদা বেগমকে (৬৫) দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাক, ট্রাকচালক ও হেলপারকে আটক করে থানাহাজতে নিয়েছে। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার চিৎলা-জুড়ানপুর সড়কের জুড়ানপুর মাদরাসার সন্নিকটে এ ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার হোগলডাঙ্গা গ্রামের খবির উদ্দিনের ছেলে করিমনচালক রফিকুল (৩৫) গতকাল রোববার সকালে হোগলডাঙ্গা থেকে ওই গ্রামের আ. মান্নানের মেয়ে রুপালি খাতুন ও একই গ্রামের শামু মণ্ডলের ছেলে নাহিদ দু এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে নিয়ে দামুড়হুদার উদ্দেশে রওনা হন। পথিমধ্যে একই গ্রামের মৃত দাউদ মোল্লার ছেলে নুর ইসলাম ও গ্রামের মৃত ফজু মণ্ডলের বৃদ্ধ স্ত্রী জবেদা বেগম ওই করিমনে ওঠে। রুপালী ওনাহিদ দামুড়হুদা আ. ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে এইচএসসি পরীক্ষা দেয়ার জন্য যাচ্ছিলো। সকাল সাড়ে আটটার দিকে জুড়ানপুর মাদরাসার সন্নিকটে এস পৌঁছুলে বিপরীত দিক থেকে আসা বালিভর্তি (চুয়াডাঙ্গা-ট-১১-০১৭৪) একটি ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে করিমনচালকসহ অপর চার যাত্রীই গুরুতর জখম হন। পথচারীরা তাদেরকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। আহতদের মধ্যে দু এইচএসসি পরীক্ষার্থী রুপালী ও নাহিদের অবস্থা খারাপ থাকায় তাদেরকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। এর মধ্যে রুপালীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। তাকে রাজশাহী নেয়া হলেও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত নয় বলে তার বোন সোনালী জানান। তিনি আরো বলেন, রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাজশাহী পৌঁছুলেও ডাক্তার না থাকায় তার মাথায় সিটিস্ক্যান করানো সম্ভব হয়নি। আজ সোমবার সকালে তার মাথায় সিটিস্ক্যান করা হবে বলেও তিনি জানান। খবর পেয়ে দামুড়হুদা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাকটি জব্দ করা হয় এবং ট্রাকচালক চুয়াডাঙ্গা দৌলতদিয়াড়ের মৃত শফি শেখের ছেলে ইজাজুল (৪৫) ও ও ট্রাকহেলপার চুয়াডাঙ্গা জাফরপুরের আজিবারের ছেলে হাফিজকে (১৯) আটক করে থানাহাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত রুপালীর পিতা আ, মান্নান দামুড়হুদা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান জানান, ট্রাকটি জব্দ করা চারক ও হেলপারকে আটক করা হয়েছে। আহতদের কোনো আপত্তি না থাকলে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *