ঈদকে সামনে রেখে বাস-ট্রেনে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা বেপরোয়া

 

স্টাফ রিপোর্টার: ঈদকে সামনে রেখে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। গতপরশু রাতে ট্রেনযাত্রী দম্পতিকে অজ্ঞান করে নগদ ৪ হাজার টাকাসহ মূল্যবান মালামাল হাতিয়ে নিয়েছে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা। অজ্ঞান হয়ে সর্বস্ব হারানো ট্রেনযাত্রী স্বামী-স্ত্রীকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ট্রেন থেকে অজ্ঞান অবস্থায় মধ্যবয়সী দম্পতিকে নামিয়ে দেয়া হয়। চুয়াডাঙ্গা স্টেশনে পড়ে থাকে। সকালে জিআরপি সদস্যরা স্থানীয়দের সহযোগিতায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। হাসপাতালে চিকিৎসার এক পর্যায়ে সন্ধ্যায় জ্ঞান ফিরতে শুরু করে। স্বামীর জ্ঞান ফিরলেও স্ত্রী তখনো শয্যাগত। তিনি বলেন, নাম মধূ মুন্সী। বয়স ৪৫। স্ত্রীর নাম তহমিনা খাতুন। বাড়ি নড়াইল জেলার কালিয়ার কালিলহরে। বুধবার সকালে বাড়ি থেকে জামাই বাড়ি বগুড়ার উদ্দেশে বের হই। যশোর স্টেশনে বসে ছিলাম। মধ্যরাতে ট্রেনে উঠি। কাছে থাকা রুটি খাই। এরপর কি হয়েছে আর জানি না। এখন দেখছি হাসপাতালে। কাছে থাকা নগদ ৪০ হাজার টাকাসহ মূল্যবান কিছু মালামাল ছিলো। কিছুই নেই।

সারাদেশেই অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। বাস ট্রেন, লঞ্চ, স্টিমার, ফেরীতে ঘুর ঘুর করছে তারা। বাসস্ট্যান্ড, স্টেশন বা ফেরী-লঞ্জ ঘাটে এক শ্রেণির হকারদের যোগসাযোসে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা টার্গেট করা যাত্রী সাধারণকে বিভিন্নভাবে অজ্ঞান করা ওষুধ প্রয়োগ করছে। অজ্ঞান হলে নিকটজন সেজে হাতিয়ে নিচ্ছে অর্থকড়ি। মূল্যবান মালামাল। একের পর এক প্রতারকচক্র অপরাধমূলক ঘটনা ঘটালেও তারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে। হাতে গোনা কিছু ধরা পড়লেও মুক্ত হয়ে ফের অভিন্ন পেশায় ফিরছে। পুলিশের লাগাতার অভিযান প্রয়োজন বলে মন্তব্য সচেতন মহলের।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *