ইবিতে প্রক্টরের কুশপুত্তলিকা দাহ :বিক্ষোভ মিছিল

 

 

ইবি প্রতিনিধি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমানকে ছাত্রলীগের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের জন্য দায়ী করে তার পদত্যাগের দাবিতে কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে বহিরাগত ও চাকরি প্রত্যাশী ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। গতকাল বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে তারা প্রক্টরের কুশপুত্তলিকা দাহ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল বুধবার বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ‘ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ’ ব্যানারে প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমানের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে স্থানীয় ও চাকরি প্রত্যাশী ছাত্রলীগের সাবেক নেতাকর্মীরা। মিছিলটি প্রধান ফটক থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়না চত্বর, প্রশাসন ভবন, বিশ্ববিদ্যালয় থানা গেট হয়ে খুলনা-কুষ্টিয়া মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রধান ফটকে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিল থেকে তারা প্রক্টরকে ছাত্রলীগের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের জন্য দায়ী করে তার পদত্যাগ দাবি করেন। মিছিলে চাকরি প্রত্যাশী ছাত্রলীগের সাবেক নেতা তৌফিকুর রহমান হিটলার, আশিকুর রহমান জাপান, মাহমুদ হাসান লেলিনসহ স্থানীয় বহিরাগত প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের যুগ্মআহ্বায়ক আহমেদ মাহফুজ সাজন, সজিবুল ইসলাম সজিব, বঙ্গবন্ধু হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম প্রধান ফটকের সামনে উপস্থিত থেকে বিক্ষোভ মিছিলের তদারকি করলেও তারা মিছিলে অংশগ্রহণ করেননি। বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রধান ফটকের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমানের কুশপুত্তলিকা দাহ করে মিছিলে অংশগ্রহণকারী চাকরি প্রত্যাশী ছাত্রলীগ ও স্থানীয় বহিরাগতরা।বিক্ষোভ মিছিলে কেন অংশগ্রহণ করেননি এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের যুগ্মআহ্বায়ক আহমেদ মাহফুজ সাজন কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

উল্লেখ্য, গত রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্যাম্পাস ১৫ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে। আগামী ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ক্যাম্পাস বন্ধ থাকবে। এদিন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এক জরুরি সিন্ডিকেট সভায় ক্যাম্পাস বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়। সংঘর্ষের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. টিএম লোকমান হাকিমকে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটির গঠন করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *