আলুকদিয়া মনিরামপুর-রাজাপুর কবরস্থানের জমি দখল করে পুকুর খনন

 

এলাকাবাসীর প্রতিরোধে জমি পুনরুদ্ধারের চেষ্টা : সংঘর্ষের আশঙ্কা

আলুকদিয়া প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা সদরের আলুকদিয়া মণিরামপুর রাজাপুর কবরস্থানের জমি দখল করে পুকুর খনন করেছে এলাকার প্রভাবশালী দুই পরিবার। শুধু তাতেই থেমে নেই দিন দিন বাড়িয়েই চলেছে দখলের পরিমাণ। গতকাল এলাকাবাসী ও কবরস্থান উন্নয়ন কমিটির উদ্যোগে জমি পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় এলাকায় বাড়ছে উত্তেজনা। যেকোনো সময় বড় ধরনের সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলুকদিয়া মণিরামপুর-রাজাপুর ও বালিয়াপাড়া গ্রামের একটি মাত্র কবরস্থান। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবত রাজাপুর গ্রামের আবুল মণ্ডলের ছেলে মাসুম মণ্ডল ও মৃত গফুর মণ্ডলের ছেলে সাইদ মণ্ডল কবরস্থানের প্রায় ৭৬ শতক জমি নিজেদের কব্জায় নিয়ে নিয়মিতভাবে মাটি বিক্রি করতো। কবরস্থান উন্নয়ন কমিটি বিভিন্ন সময় বাধা দিলে ক্ষমতার দাপটে কোনোকিছু করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। মাটি বিক্রি করে কবরস্থানে দুটি পুকুরের সৃষ্টি হয়েছে যেখানে বর্তমানে মাছচাষও করা হচ্ছে। গতকাল জমি পুনরুদ্ধারে কবরস্থান উন্নয়ন কমিটি এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে জমি মাপজোপ শুরু করে এবং কবরস্থানের জমির সীমানা নির্ধারণ করে বাঁশ পুঁতে জায়গা দখল করে। এলাকাবাসীর অভিযোগ এর আগেও বার বার এভাবে জমি দখল করা হয়েছে কিন্তু কোনো সুরাহা পাওয়া জায়নি। পুকুরে মাটি কাটা অবস্থায় অনেক মৃত দেহের হাড়গোড় বেরিয়ে এলেও তার তোয়াক্কা করা হয়নি। দিন দিন জমি দখলের পরিমাণ বেড়েই চলেছে। পুকুরে মাছ চাষের ফলে নিয়মিত পানি দেয়াতে পাড় ভেঙেই চলেছে। কবরস্থান উন্নয়ন কমিটির অভিযোগ তারা কবরস্থানের বড় বড় গাছ মাঝে মাঝেই বিক্রি করে। গতকাল জমি দখলের সময় মণিরামরপুর, রাজাপুর ও বালিয়াপাড়া গ্রামের জনগণ ওই দুই পরিবারের ওপর উত্তেজিত হয়ে উঠে। এ সময় আলুকদিয়া সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দিন, ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংকের ম্যানেজার নাসির উদ্দিন লাভলু, কমিটির সাধারণ সম্পাদক কবির উদ্দিন উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করেন। আবারও পুনরুদ্ধারে ব্যর্থ হলে যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের অঘটন। তাই বিষয়টি সুরাহা করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *