আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ রেলস্টেশনের অদূরে ট্রেনে কেটে মানসিক প্রতিবন্ধীর করুণ মৃত্যু

No Image

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গা উপজেলার মুন্সিগঞ্জ রেলস্টেশনের অদূরে গতকাল শনিবার সকালে কপোতাক্ষ আন্তঃনগর ট্রেনে কেটে এক মানসিক প্রতিবন্ধীর মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। দীর্ঘ সময় ধরে লাশের পরিচয় অজ্ঞাত থাকলেও সন্ধায় মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে পরিচয় মিলেছে।

জানা গেছে, গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মুন্সিগঞ্জ রেলস্টেশনের অদূরের ১৪৮/৮ নং পিলারের আপ লাইনে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহী মুখি কপোতাক্ষ আন্তঃনগর ট্রেনে কেটে এক মানসিক প্রতিবন্ধীর মুত্যু হয়েছে। ট্রেনে কেটে তার শরীর ৪ টুকরো হয়ে ছিন্ন-বিছিন্ন হয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে পোড়াদহ জিআরপি পুলিশের এসআই সেলিম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বেলা ১টার দিকে লাশ উদ্বার করে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে মুন্সিগঞ্জ রেলস্টেশনে নিয়ে যায়। সেখানে দীর্ঘসময় ধরে লাশ অজ্ঞাত পরিচয়ে পড়ে থাকলেও বিকেলে লাশের পকেটে থাকা মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে লাশের পরিচয় পাওয়া যায়। সন্ধ্যায় লাশের নিটকজনেরা মুন্সিগঞ্জ রেলস্টেশনে উপস্থিত হয়ে লাশ শনাক্ত করে।

পারিবারিকসূত্রে জানা গেছে, মেহেরপুর জেলার আমঝুপি হাটপাড়া গ্রামের সাইদুরের ছেলে এক সন্তানের জনক মানসিক প্রতিবন্ধী শরিফুল ইসলাম তপন (৪০)। সে এক সময় পিডিবি বিদ্যুত অফিসের চাকরি করতো। সে ৩ দিন ধরে নিখোঁজ ছিলো। মৃত তপন মাঝে মাঝেই বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যেতো। তাদের ধারণা, ট্রেনে কাটা শরিফুলের এক ভাই রেলওয়েতে চাকরি করে কুষ্টিয়াতে। সে মানসিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় পায়ে হেটেই তার ভায়ের সাথে দেখা করতে যাচ্ছিলো। যাওয়ার পথে মুন্সিগঞ্জ রেলস্টেশনের অদূরের ১৪৮/৮ নং পিলারের নিটক পেছন থেকে কপোতাক্ষ ট্রেনে কেটে তার মৃত্যু হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ময়নাতদন্ত ছাড়াই তার লাশ নিজ গ্রামে নেয়ার প্রক্রিয়া চলছিলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *