আলমডাঙ্গার পল্লি তিয়রবিলায় লাশ হয়েছে কিশোরী বধূ

বিয়ের সময় যৌতুকের দাবি না থাকলেও কিছুদিন পরই জুয়াড়ি শুরু করে উৎপাত!

আলমডাঙ্গার পল্লি তিয়রবিলায় লাশ হয়েছে কিশোরী বধূ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার পল্লি তিয়রবিলায় এক কিশোরী বধূ রোকসানা খাতুন (১৬) লাশ হয়েছে। গতপরশু রোববার রাত ৩টার দিকে স্বামীর ঘরেই লাশ হয় সে। লাশ উদ্ধারের পর যৌতুক লোভী স্বামী ও তার মা স্বপ্নসহ নানা অলৌকিক কল্পকাহিনী বলতে থাকে। ফলে সন্দেহের মাত্রা বেড়ে যায়।

রোকসানা খাতুনের মৃতদেহ পুলিশ উদ্ধার করেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় মৃতদেহ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালমর্গে নেয়া হয়। আজ মঙ্গলবার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হবে। এরপর মৃতদেহ তার পিতার বাড়ি ঝিনাইদহ শৈলকুপার বালিয়াডাঙ্গায় নিয়ে দাফন সম্পন্ন করা হতে পারে। বালিয়াডাঙ্গার মেম্বার আব্দুস সাত্তার এ তথ্য জানিয়ে বলেছেন, রোকসানা খাতুন বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে। গ্রামের প্রাইমারি স্কুলে পড়তো। কয়েক মাস আগে আলমডাঙ্গার পল্লি খাসকররার তিয়রবিলা গ্রামের সরোয়ারের ছেলে হাসিবুলের সাথে গোপনে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় যৌতুকের দাবি না থাকলেও জুয়াড়ি হাসিবুল পরে দফায় দফায় পিতার বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য রোকসানাকে চাপ দিতো। মারধর করতো। এরই এক পর্যায়ে সোমবার সকালে রোকসানার পিতার বাড়িতে খবর দেয় সে নাকি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। অথচ আত্মহত্যার তেমন আলামত নেই। সে কারণেই হত্যার অভিযোগ তোলা হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।

তিয়রবিলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আব্দুল হাকিম বলেছেন, সকালে খবর পেয়ে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রণয়ন করি। মেয়ের পিতা পক্ষের অভিযোগের প্রেক্ষিতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালমর্গে নেয়া হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *