আলমডাঙ্গার জামজামি-কুষ্টিয়া সড়কের আসাননগরে বাস-আলমসাধুর সংঘর্ষে গৃহবধূ নিহত : আহত ৮

জামজামি প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার জামজামি-কুষ্টিয়া সড়কের আসাননগর- হাতিভাঙ্গার মধ্যবর্তী সড়কে গতকাল বিকেলে বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে আলমসাধুযাত্রী সাগরী (২৬) নামক এক গৃহবধূ নিহত হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় সাগরীর ৪ বছরের শিশুসন্তান রাহুলসহ একই পরিবারের আরো ৮জন রক্তাক্ত জখম হয়েছে। আহতদের মাঝে শিশু রাহুলকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও অন্যদের কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর বাস এমভি এক্সক্লুসিভ (কুমিল্লা ব ৫৪৫৫) ও অবৈধ আলমসাধুটি জনতা আটক করেছে। উভয় চালক পালিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে স্থানীয়রা জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা জামজামি বাজার কুষ্টিয়া সড়কের আসাননগর-হাতিভাঙ্গার মধ্যবর্তী সড়কে কুষ্টিয়া অভিমুখী বাস এমভি এক্সক্লুসিভ আসাননগর অভিমুখী যাত্রী বোঝাই আলমসাধুকে সামনাসামনি ধাক্কা দিলে সড়ক থেকে আলমসাধুটি যাত্রী সমেত গর্তে উল্টে পড়ে। চিৎকার কান্নাকাটির শব্দে দৌড়ে আসে পথচারী জনতা। ঘটনাস্থলেই নিহত হন আসাননগর গ্রামের সাহেব আলির স্ত্রী সাগরী খাতুন, কোলের শিশু রাহুলসহ একই পরিবারের মফিজ উদ্দিনের শিশুপুত্র বাপ্পি (৬), স্ত্রী বীনা খাতুন (২৫), খয়বার আলির স্ত্রী রোকেয়া খাতুন (৫৫), হাফেজ আলির স্ত্রী রাশিদা খাতুন (৪০), রসুল মণ্ডলের স্ত্রী মনিনী খাতুন (৪০) ও হাফেজ মণ্ডলের ছেলে শিশু শাহীন (৯) রক্তাক্ত জখম হয়। স্থানীয়রা গুরুতর জখম শিশু রাহুলকে প্রথমে আলমডাঙ্গা ক্লিনিকে ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেছে। অন্যদের কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে তাদের পরিবার জানিয়েছে। জনতা বাসচালক ও আলমসাধু চালককে আটকাতে ব্যর্থ হয়েছে। বাসচালকের পরিচয় দিয়ে কেউ কেউ বলেছে, বাসচালক পেড়াদহের জাবেদ আলী। বিক্ষুব্ধ জনতা আটক পরিবহন দুটি মনোহরদিয়া ফাঁড়ি পুলিশের জিম্মায় দিয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *