আলমডাঙ্গার গোয়ালবাড়িতে অনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে গাছে বেঁধে পেটানোর ঘটনায় ৪ জন আটক

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গায় অনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে দুজনকে গাছে বেঁধে পেটানোর ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ অভিযুক্ত নির্যাতনকারী ৪ জনকে করে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতিতে চলছে। গত বুধবার রাতে আলমডাঙ্গা উপজেলার গোয়ালবাড়ী গ্রামেনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে হাসান ও বিউটি নামের দুজনকে গাছে বেঁধে পেটানো হয়।
পুলিশ ও এলাকাসূত্রে জানা গেছে, গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে হাসানুজ্জামান হাসান বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে একই গ্রামের সেন্টু রহমানের বাড়িতে যান। এ সময় অনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে কতিপয় যুবক হাসান ও সেন্টুর স্ত্রী বিউটিকে একটি ঘরে আটক করে। পরে বাড়ির সামনের একটি গাছে তাদেরকে এক দড়িতে বাঁধা হয়। চলে মারপিট। প্রায় দু ঘণ্টা নির্যাতনের পর রাত সাড়ে ১০টার দিকে সালিসে বিচারের শর্তে তাদেরকে দড়ির বাঁধনমুক্ত করা হয়। তবে সেন্টুর স্ত্রী বিউটিকে তুলে দেয়া হয় হাসানের বাড়িতে। এ নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা শুরু হয়। এ ব্যাপারে নির্যাতনের শিকার হাসান জানান, সেন্টু দিনমজুর। আমি কামলা খুঁজতে তার বাড়িতে গিয়েছিলাম। এ সময় গ্রামের একটি কুচক্রীমহল ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমাদেরকে ঘরে আটকে রাখে। পরে গাছে বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালায়। নির্যাতনের শিকার বিউটিও অভিন্ন ভাষায় অভিযোগ করেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ অভিযুক্ত নির্যাতনকারী ৪ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলো- গ্রামের রিকাত আলীর ছেলে ছাদেক আলী, জামিল হোসেনের ছেলে কালাম, আসাদুলের ছেলে পলাশ ও জালাল উদ্দিনের ছেলে মনোয়ার। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত গৃহবধূ বিউটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *