আলমডাঙ্গার ওসমানপুরে দর্জি প্রশিক্ষণের নাম করে ১০০ নারীর টাকা নিয়ে কথিত প্রশিক্ষক লাপাত্তা

 

 

ভ্রাম্যামাণ প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার ওসমানপুর গ্রামে দর্জি প্রশিক্ষণের কথা বলে দরিদ্র মহিলাদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে লাপাত্তা হয়েছেন কথিত প্রশিক্ষক আবু জাফর। মাত্র ৫দিন হাতেকলমে শিক্ষা দিয়ে ১ শ মহিলার কাছ থেকে টাকা নিয়ে তিনি লাপাত্তা হয়ে যান। তার মোবাইলফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি আসার কথা বলেও আর আসেননি। দরিদ্র নারীরা জনৈক জাফরের শাস্তি দাবি করেছেন।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার হারদী ইউনিয়নের ওসমানপুর-প্রাগপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শাপলা টেকনিক্যাল গ্রামে দর্জি প্রশিক্ষণের নাম করে শাপলা টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার নামে একটি সাইনবোর্ড ঝুলান জনৈক আবু জাফর। যাতে তিনি উল্লেখ করেন রেজি. নং- পিএফ-৯৭ কেরানিগঞ্জ,ঢাকা। এরপর তিনি প্রতারণার ফাঁদ পাতেন। দর্জি প্রশিক্ষণ দেয়ার নাম করে এলাকার ১শ দরিদ্র মহিলার কাছ থেকে জনপ্রতি ৩৬০ টাকা করে মোট ৩৬ হাজার টাকা গ্রহণ করেন জাফর। পরবর্তীতে মাত্র ৫দিন প্রশিক্ষণ দেয়ার পর লাপাত্তা হয়ে যান জাফর। তার এ শাপলা টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার এবং রেজি. নম্বর ভুয়া কি না তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ দেখা দিয়েছে এলাকায়। পরবর্তীতে জাফরের দেয়া ০১৯১২৭৮১৮১৮ নম্বর মোবাইলফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন সময়মতো আসবো। কিন্তু তিনি আর আসেননি। জনৈক জাফরের টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টারটি যদি সত্যিই হয়ে থাকে তার লাইসেন্স বাতিলের জন্য দাবি তুলেছে ভুক্তভোগীরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *