আন্দুলবাড়িয়ায় স্কুলছাত্রী অপহরণের অভিযোগে নৈশপ্রহরী গ্রেফতার

 

আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি: পরস্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে আন্দুলবাড়িয়া বহুমুখি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সেই আলোচিত নৈশপ্রহরী হাবিলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে জীবননগর থানা পুলিশ কোটচাঁদপুর উপজেলার ভোমরাডাঙ্গা গ্রাম থেকে সহযোগীসহ দু জুটিকে উদ্ধার করে। পুলিশ গতকাল বুধবার অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় আদালতে সোর্পদ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। একই সাথে অপহৃত নববধূকে পিতার জিম্মায় দিয়ে ধর্ষণ অভিযোগে মেডিকেলে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া দোসীমানাপাড়ার হারেজ আলীর মেয়ে বিপাশা খাতুন স্থানীয় বহুমুখি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী। কয়েক মাস আগে তার যশোর চৌগাছা উপজেলার বড় খাপুর গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে মামাতো ভাই শিমুল হোসেনের সাথে বিয়ে হয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় আন্দুলবাড়িয়া দোসীমানাপাড়ার মৃত সোনাই মণ্ডলের ছেলে হাবিল (৪০) ও কালিগঞ্জ উপজেলার আলাইপুর গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে লিপ্পুন বিপাশাকে জোরপূর্বক অপহরণ করে অসৎ উদ্দেশে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে আটকে রাখে এবং পরিবারের লোকজনকে মোবাইলফোনে হুমকি দিতে থাকে। এ ঘটনায় হারেজ আলী মণ্ডল বাদী হয়ে থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। এ অভিয়োগ পেয়ে জীবননগর থানার ওসি আব্দুর রকিব খানের নির্দেশে এসআই আজগার আলী সঙ্গীয় ফোর্সসহ কোটচাঁদপুর উপজেলার দোড়াপাচঁলিয়া ইউনিয়নের ভোমরাডাঙ্গা গ্রামে অভিযান চালিয়ে অপহরক হাবিল ও তার সহযোগীদেরসহ অপহৃত বিপাশাকে উদ্ধার করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *