আজ পঁচিশে বৈশাখ : কবিগুরুর ১৫৩তম জন্মবার্ষিকী

শিলাইদহশাহজাদপুর ও পতিসরে উত্সব

 

স্টাফ রিপোর্টার:আজ পঁচিশে বৈশাখ। মহাকালেরবিস্তীর্ণ পটভূমিতে এক ব্যতিক্রমী রবির কিরণে উজ্জ্বল এ পঁচিশে বৈশাখ।১৮৬১ সালের এদিনে কোলকাতার জোড়াসাঁকোয় সাধক ও সামন্তপ্রভু জমিদার দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের ঘর আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন বাঙালির কবি, বাংলার কবি, কবিগুরুরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।কবিগুরুকে স্মরণ করতে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুরসহ সারাদেশে ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে।

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের১৫৩তম জন্মদিন আজ। ১৯৪১ খ্রিস্টাব্দের বাংলা ২২ শ্রাবণ মৃত্যুবরণ করলেও বাংলাভাষার প্রধান কবি হয়ে বাঙালির হৃদয়ে চির আসন করে নিয়েছেন। রবীন্দ্রনাথেরধর্মীয় ও দার্শনিক চেতনা ছিলো- শুধু নিজের শান্তি বা নিজের আত্মার মুক্তিরজন্য ধর্ম নয়। মানুষের কল্যাণের জন্য যে সাধনা তাই ছিলো তার ধর্ম। তার দর্শনছিলো মানুষের মুক্তির দর্শন। বিশ্বাস করতেন বিশ্বমানবতায়। রবীন্দ্রনাথবাঙালির মন-মানসিকতা গঠনে, চেতনার উন্মেষে অন্যতম প্রধান অবলম্বন। বাঙালিরঐতিহ্যলালিত দর্শন ও সাহিত্য, তাঁর রচনার মধ্য দিয়ে বিশ্বসাহিত্যসভায়পরিচিতি পান। ১৯১৩ সালে প্রথম বাঙালি এবং এশীয় হিসাবে সাহিত্যে নোবেলপুরস্কার অর্জন করেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলা ভাষাভাষী মানুষ কবিরজন্মবার্ষিকীর দিবসটি পালন করবে হৃদয় উত্সারিত আবেগ ও শ্রদ্ধায়।রবীন্দ্রনাথঠাকুরের বহুমুখী সৃজনশীলতা বাংলা সাহিত্য ও শিল্পের প্রায় সবকটি শাখাকেস্পর্শ করেছে, সমৃদ্ধ করেছে। তাঁর হাতেই বাংলা ভাষায় প্রথম সার্থকছোটগল্পের সৃষ্টি হয়েছে। বাংলা উপন্যাসকে তিনি আধুনিক ও সার্থক উপন্যাসেতুলে এনেছেন। শুধু সৃজনশীল সাহিত্য রচনায় নয়, অর্থনীতি, সমাজ, রাষ্ট্র নিয়েতাঁর ভাবনাও তাঁকে অত্যন্ত উঁচু স্থানে নিয়ে গেছে। তাঁর লেখা গান বাঙালিরহৃদয়ে প্রতিধ্বনিত হয়। বাংলাদেশের মানুষের কাছে রবীন্দ্রনাথ প্রেরণাদায়ীপুরুষ। রবীন্দ্রনাথের কবিতা, গান মানুষের দেখায় পথের দিশা।

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৩তম জন্মজয়ন্তি উপলক্ষে কবির স্মৃতিবিজড়িতকুমারখালীর শিলাইদহ কুঠিবাড়ি ও সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর কাছারি বাড়িতে ৩দিনব্যাপি উত্সব শুরু হচ্ছে আজ। এছাড়া কবির জন্মদিনে নওগাঁর আত্রাইয়েরপতিসর কুঠিবাড়িতে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এদিকে চুয়াডাঙ্গা শিল্পকলা একাডেমি আজ সন্ধ্যা ৭টায় শ্রীমন্ত টাউন হলে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

কুমারখাল (কুষ্টিয়া) সংবাদদাতা জানান, আজ ২৫ বৈশাখ শিলাইদহ কুঠিবাড়ির আঙিনায় সকাল১০টায় উত্সবের উদ্বোধন করবেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি। জেলাপ্রশাসনের আয়োজনে জেলার বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন মূল মঞ্চে পরিবেশন করবেরবীন্দ্র সংগীত। এছাড়া বাড়ির বাইরে চলবে ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ মেলা।কবিগুরু দীর্ঘ ১০ বছর একটানা শিলাইদহে কাটিয়েছেন। ৩২ বিঘা জমি নিয়ে একুঠিবাড়ির আয়তন। বাড়িটির বাইরের দিকে রেড অক্সাইডজাতীয় রঙের প্রলেপ ছিলো।কিন্তু বিগত চারদলীয় জোট সরকারের সময়ে সেই রঙ মুছে সাদা চুনকাম করা হয়।প্রত্নতাত্ত্বিক সম্পদকে এভাবে পরিবর্তন করায় অনেকে আপত্তি তুলেছিলেন।কিন্তু তারপরও এ কুঠিবাড়ি তার আগের লাল রঙ ফিরে পায়নি।কুষ্টিয়ারজেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন এ ব্যাপারে জানান, সরকার এবিষয়ে একটি কমিটি গঠন করেছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে কুঠিবাড়ির রঙ সমস্যারসমাধান হবে।

এদিকে আজ সকাল ১০টায় শাহজাদপুর কাছারি বাড়িতে রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকরবেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড.গহর রিজভী।উদ্বোধনী দিনে কাছারি বাড়ির রবীন্দ্র অডিটোরিয়ামে রবীন্দ্র সংগীত ও নৃত্যপরিবেশন করবেন শিল্পীরা। সন্ধ্যায় একই মঞ্চে রবীন্দ্রনাথের লোকসংস্কৃতিঅন্বেষাপ্রবন্ধের ওপর আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া আগামীকাল শুক্রবারও শনিবার আলোচনা, গান, নাটক, নৃত্য আলেখ্যসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালারআয়োজন করা হয়েছে। অন্যদিকে কবির জন্মদিন উপলক্ষে শাহজাদপুর হাই স্কুল মাঠে৮ দিনব্যাপি রবীন্দ্র মেলা শুরু হচ্ছে আজ।

অপরদিকে নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার মনিয়ারী ইউনিয়নের কালিগ্রামের পতিসরে বিশ্বকবিরবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত কুঠিবাড়িতে কবির জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে আজনানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায়জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নেয়া এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে কবির কর্মময় জীবনও স্মৃতি নিয়ে আলোচনা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিথাকবেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক এমপি।প্রসঙ্গত, কবি পতিসর কুঠিবাড়িতে সর্বশেষ আসেন ১৯৩৭ সালে। এ পতিসরে বসে তিনি রচনাকরেছেন গোরা ও ঘরে বাইরে উপন্যাসের অনেকাংশসহ বেশকিছু গান ও ছোটগল্প।এখানে রয়েছে কবির দেয়াল ঘড়ি, লোহার সিন্দুক, খাট, টি-টেবিল, কবির স্বহস্তেলিখিত ৬ পৃষ্ঠার চিঠির ফটোকপি, বজরার রেপ্লিকাসহ নানা সামগ্রী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *