আজ চাঁদ দেখা গেলে কাল ঈদ

 

 

স্টাফ রিপোর্টার: দেখতেদেখতে শেষ হয়ে এলো আত্মশুদ্ধির মাস পবিত্র রমজান। আজ পবিত্র রমজান মাসের২৯ তারিখ। বরাবরের মতো এবারও শুরু হয়ে গেছে ঈদুল ফিতরের আনন্দময় অনিশ্চয়তা।কবে ঈদ?এই প্রশ্ন এখন মুসলিম ধর্মাবলম্বী প্রতিটি মানুষের মুখে মুখে।মাগরিবের নামাজ শেষে শিশু-কিশোরদের ঢল নামবে রাস্তায় রাস্তায়। সবাই উৎসুকহয়ে থাকবে শাওয়াল মাসের নতুন চাঁদ দেখার জন্য। সন্ধ্যায় বাংলাদেশের পশ্চিমআকাশে পবিত্র শাওয়ালের চাঁদ দেখা গেলে কাল উদযাপিত হবে মুসলিম সম্প্রদায়েরসবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। সেইসাথে বেজে উঠবে আমাদের জাতীয়কবি কাজী নজরুলের সেই অমর গান ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ …। পাড়া-মহল্লার মসজিদ থেকে ভেসে আসবে ঈদ মোবারক ধ্বনি। আর চাঁদ দেখা নাগেলে বুধবার ঈদ উদযাপিত হবে।

রমজান মুসলমানদের কাছে রহমত, মাগফেরাত ওনাজাতের মাস। মহান আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের আশায় রোজা পালন করেছেন কোটিমানুষ।কোরআন শরিফ পাঠ করেছেন, দান-খয়রাত করেছেন, মগ্ন থেকেছেনইবাদত-বন্দেগিতে। এর পাশাপাশি ছিলো সবার জন্য নতুন পোশাক সংগ্রহের চেষ্টা।উৎসবের জন্য নিজের আর প্রিয়জনের জন্য সাধ্যমতো পোশাক-আশাক কেনার আনন্দই বাকম কিসের! সব শেষে প্রিয়জনের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগ করতে বহু কষ্টে বাড়িফেরার আয়োজন। পুরো একটি মাস যেন আবর্তিত হয়েছে এই ঈদকে ঘিরে।ঈদ মুসমলিমসম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসব ঠিকই তবে এর সর্বজনীন আবেদন সব সম্প্রদায়ের।দীর্ঘ এক মাস রোজা পালন শেষে পবিত্র ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়হিন্দু-মুসলমান নির্বিশেষে সব মানুষ।

চাঁদ দেখা যাওয়ার পর ঘুমহীন দীর্ঘরাতটা পোয়ালেই শুরু হবে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশে মুসলমানদেরমিলনের বন্ধন। রাজপ্রাসাদ থেকে কুঁড়েঘর পর্যন্ত খুশির আলোয় আলোকিত হবে। একেঅন্যের সাথে কুশলাদি বিনিময় করতে থাকবে। কোলাকুলি আর ফিরনি-সেমাই খাওয়ারধুম থেকে বাদ যাবে না কেউই। ঘুম থেকে ওঠার পরই শুরু হয়ে যাবে এসব ধুমধাম।পুরো বাংলাদেশ আনন্দের আলোয় ঝলমল করতে থাকবে। এরই মধ্যে সবাই ঈদের সবপ্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছে। প্রত্যেকেই জামাকাপড়সহ পছন্দের জিনিসপত্রক্রয় করেছে। বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনদের মাঝে বিভিন্ন উপহারসামগ্রীবিতরণ করছেন। পাশাপাশি ঈদকার্ডে মনের কথা লিখে প্রিয়জনকে ঈদের শুভেচ্ছাজানাচ্ছেন অনেকেই। অপরদিকে ঈদ যতোই কাছে আসছে মোবাইল ফোন খরচ ততোই বাড়ছে। আরমোবাইল কোম্পানিগুলোও ঈদ উপলক্ষে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার কথা ঘোষণা করছে।এসব সুযোগ-সুবিধা কাজে লাগিয়ে প্রিয়জনের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতেসবাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।

পবিত্র ঈদ মুসলমানদের মাঝে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনসুদৃঢ় করে এবং সম্প্রীতি বৃদ্ধি করে। বিশ্ব মুসলিম একই আত্মার বন্ধনে আবদ্ধএ কথা স্মরণ করিয়ে দেয় পবিত্র ঈদ। ধনী-গরিব ভেদাভেদ ভুলিয়ে দিয়েরাজা-প্রজা এক কাতারে শামিল করিয়ে দেয় পবিত্র ঈদ।পবিত্র ঈদুল ফিতরউপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। এছাড়াবিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও নেতারাও দেশবাসীকে পৃথক পৃথক ঈদের শুভেচ্ছাজানিয়েছেন। ঈদ সব মানুষের জন্য রহমত বয়ে আনুক- এ কামনাই করছে সবাই।

জাতীয়চাঁদ দেখা কমিটির সভা আজ: ঈদের তারিখ নির্ধারণের লক্ষ্যে আজ সন্ধ্যায়বসবে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি। সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে এসভা হবে। এতে ধর্মমন্ত্রী এবং জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি আলহাজপ্রিন্সিপাল মতিউর রহমান সভাপতিত্ব করবেন।রোববার ইসলামিক ফাউন্ডেশনেরএক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশেরআকাশে কোথাও পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে তা ৯৫৫৯৪৯৩, ৯৫৫৯৬৪৩, ৯৫৫৫৯৪৭, ৯৫৫৬৪০৭, ৯৫৫৮৩৩৭ নম্বরে ফোন করে অথবা ৯৫৬৩৩৯৭ নম্বরে ফ্যাক্সকরে জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.