আগামীকালপ্রকাশিত হচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষার ফল : গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা এবারও হচ্ছে না

 

স্টাফ রিপোর্টার: আগামীকালপ্রকাশিত হচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষার ফল। অন্যান্য বছর এই ফল প্রকাশের পরসাধারণত সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়। কিন্তুএবার আগেভাগেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ ১৭টি বিশ্ববিদ্যালয় এ তারিখ ঘোষণাকরেছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এভাবে অগ্রিম তারিখ ঘোষণায় সুবিধা-অসুবিধাদুটিই রয়েছে।

প্রায় অর্ধযুগ ধরে সরকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গুচ্ছভিত্তিকভর্তি পরীক্ষা নেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। উচ্চশিক্ষার ‘অ্যাপেক্সবডি’খ্যাতবিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সর্বশেষ প্রস্তাবনা অনুযায়ীবিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী ৮টি গুচ্ছে এ পরীক্ষা নেয়া যায়। এরইঅংশ হিসেবে প্রকৌশল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য৩টি গুচ্ছ ছাড়াও সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য ৫টি গুচ্ছে ভর্তি পরীক্ষানেয়া যায়। সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫টি গুচ্ছ হচ্ছে- বিজ্ঞান অনুষদ, বিজনেসস্টাডিজ অনুষদ, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞানসহ অন্যান্য অনুষদের জন্য আলাদাগুচ্ছে পরীক্ষা। এই পদ্ধতি বাস্তবায়ন করা গেলে শিক্ষার্থীদের এবিশ্ববিদ্যালয় থেকে ও বিশ্ববিদ্যালয়ে দৌড়ঝাঁপ, আলাদা ফরম কেনা ও পরীক্ষায়বসার জন্য সময়, শ্রম, অর্থ গচ্চা এবং ভোগান্তি থেকে মুক্তি মিলত। কিন্তুআগেভাগে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এভাবে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণায় সেই আশায় গুড়েবালিপড়ল।

সূত্র জানায়, গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তির জন্য গত বছর ৭ জুলাই শিক্ষামন্ত্রণালয় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের নিয়ে বৈঠক করে। ওই বৈঠকেবুয়েট, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিশ্ববিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষারপক্ষে সায় দিয়েছিল। সে অনুযায়ী গত বছর যশোর ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিশ্ববিদ্যালয় কার্যক্রমও শুরু করে। যদিও শেষপর্যন্ত তা বাস্তবায়ন করাযায়নি। তবে গত বছরের এ বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার গুচ্ছভিত্তিক ভর্তিরবিষয়টি বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়েই বাস্তবায়ন হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তুমন্ত্রণালয়ের এ ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়ার আগেই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবারভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করে ফেলেছে। ফলে এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের আরউদ্যোগ নেয়ার পথ খোলা রইলো না।
জানতে চাইলে ইউজিসির চেয়ারম্যান অধ্যাপকড. একে আজাদ চৌধুরী জানান, ‘বাস্তবতার নিরিখে গুচ্ছভিত্তিকভর্তি পরীক্ষা প্রয়োজন। এতে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভোগান্তি কমবে ও অর্থসাশ্রয় হবে। কিন্তু আমার মনে হয়, এটা এবার আর বাস্তবায়ন হবে না। কেননাইতিমধ্যে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ফরম বিতরণ ও পরীক্ষার তারিখ ঘোষণাকরে ফেলেছে।’ তিনি এ সময় আরও বলেন, ‘গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষার ক্ষেত্রেসুবিধা থাকলেও অসুবিধাও কম নেই। একজন শিক্ষার্থী একটি বিশ্ববিদ্যালয়েরপরীক্ষায় যে কোনো কারণেই খারাপ করতে পারে। এ ক্ষেত্রে তার আরেকবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষায় ভালো করার সুযোগ থাকে; যা গুচ্ছভিত্তিক পরীক্ষারক্ষেত্রে রুদ্ধ হয়ে যাবে।’

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, জাহাঙ্গীরনগরের মতো বড় চারটি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ভর্তি পরীক্ষারতারিখ ঘোষণা করেছে। এছাড়া খুলনা ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রুয়েট, চুয়েট, কুয়েট, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, মওলানাভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়সহ এ পর্যন্ত মোট ১৭টি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।ইতোমধ্যে ৬১টি মেডিকেল কলেজ, ১৯টি ডেন্টাল কলেজের পরীক্ষার তারিখও ঘোষিতহয়েছে।

কোথায় কবে ভর্তি পরীক্ষা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথবিশ্ববিদ্যালয়ে একই দিনে পরীক্ষা নেয়ার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রেপার্থক্য কেবল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা হবে সকালে। আর জগন্নাথবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা হবে বিকাল ৩টা থেকে। ঘোষণা অনুযায়ী উভয়বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে- ১২ সেপ্টেম্বর ক ইউনিট, ১৯সেপ্টেম্বর খ ইউনিট, ৫ সেপ্টেম্বর গ ইউনিট, ২৬ সেপ্টেম্বর ঘ ইউনিট, ১৩সেপ্টেম্বর চ (ই) ইউনিট।অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে জাহাঙ্গীরনগরবিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৭অক্টোবর থেকে ৬ নভেম্বর, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯ থেকে ২৫ অক্টোবর, খুলনাবিশ্ববিদ্যালয়ে ২৯ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৮ ও ১৯অক্টোবর, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) ২৪ অক্টোবর, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট) ৩১ অক্টোবর, চট্টগ্রামপ্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) ৮ নভেম্বর, শেরেবাংলা কৃষিবিশ্ববিদ্যালয়ে ১৪ নভেম্বর, কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৩ থেকে ২৭নভেম্বর, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬ ও ৭ নভেম্বর, বাংলাদেশকৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৮ নভেম্বর, জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০থেকে ১৩ নভেম্বর, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৯নভেম্বর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজেভর্তি পরীক্ষা হবে ৩ অক্টোবর।

জানা গেছে, এর মধ্যে জগন্নাথবিশ্ববিদ্যালয়ে ১৮ আগস্ট দুপুর ১২টা থেকে ২৮ আগস্ট রাত ১২টার মধ্যে টেলিটকমোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষাসংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (http://www.jnu.ac.bd/) পাওয়া যাবে। একইভাবে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষার ফরম পূরণ কার্যক্রম চলবে ১ থেকে ৩০সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। কুয়েটে ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়েরনোটিশ বোর্ড ও ওয়েবসাইটে (www.kuet.ac.bd) পাওয়া যাবে।রুয়েটের ভর্তিপরীক্ষার আবেদনের যাবতীয় নিয়মাবলী ও সময়সূচি প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট (www.ruet.ac.bd) প্রকাশ করা হবে। রুয়েটে ১০টি বিভাগে মোট ৭২৫টি আসন রয়েছে।চুয়েটেও ভর্তি সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্যও বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড ওওয়েবসাইটে (www.cuet.ac.bd) পাওয়া যাবে।খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিপরীক্ষার জন্য আবেদন ২০ আগস্ট থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত করা যাবে। এইচএসসিপরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার পর ভর্তি পরীক্ষার নিয়মাবলীসহ বিস্তারিত তথ্যপত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটেও (www.ku.ac.bd) প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.