অস্ত্রের মুখে করে আলমসাধু ছিনতাই : একজনকে পিটিয়ে জখম

দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা-ঠাকুরপুর ও সদাবরি-বুইচিতলা সড়কে ছিনতাইকারদের তাণ্ড

ভ্রাম্যমা প্রতিনিধি/কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি: দামুড়হুদার পৃথক দুটি স্থানে ছিনতাইকারীরা তাণ্ডব চালিয়েছে। ছিনতাইকারীরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ছিনিয়ে নিয়েছে আলমসাধু। পিটিয়ে জখম করেছে একজনকে।

জানা গেছে, গত বুধবার রাত ৩টার দিকে দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের পীরপুরকুল্লাহ গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে সেলিম আলমসাধু নিয়ে কার্পাসডাঙ্গার উদ্দেশে যাচ্ছিলেন। কার্পাসডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডে ভাড়ার সিরিয়ালের জন্যই গভীররাতে যাচ্ছিলেন সেলিম। পথিমধ্যে কার্পাসডাঙ্গা-ঠাকুরপুর সড়কের ধাপারমাঠ নামকস্থানে পৌঁছুলে ৭/৮ জনের সশস্ত্র ছিনতাইকারীরা সেলিমের গতিরোধ করে অস্ত্রের মুখে ছিনিয়ে নেয় আলমসাধু। সেলিমকে মারধর করে রাস্তার পাশের গাছে সাথে বেঁধে আলমসাধু নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা সেলিমকে উদ্ধার করেছে।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার কুড়ুলগাছি ইউনিয়নের বুইচিতলার ইসলাম আলীর ছেলে শুকুর আলী করিমন নিয়ে কার্পাসডাঙ্গা থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে শুকুর আলী সদাবরি-বুইচিতলা সড়কের মাঝামাঝি স্থানে পৌঁছুলে ৭/৮ জনের সশস্ত্র ছিনতাইকারী তার গতিরোধ করে। অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ছিনিয়ে নেয় শুকুর আলীর করিমন। বাধা দিতে গেলে শুকুরকে বেধরকভাবে পিটিয়ে আহত করে ফেলে ছিনতাইকারীরা করিমন নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় শুকুর আলীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে ধাওয়া করে ছিনতাইকারীদের। খবর পেয়ে কার্পাসডাঙ্গা আইসি ইনচার্জ এসআই ইমদাদুল হক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান।

পুলিশ ও গ্রামবাসী ছিনতাইকারীদের হাত থেকে উদ্ধার করেছে করিমন। তবে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। আহত শুকুর আলীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য দামুড়হুদার চিৎলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *