অবুঝ কিশোরকে দিয়ে বোমা উদ্ধার করালো পুলিশ!

 

চুয়াডাঙ্গা দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ার মোড়ে বোমা দেখে চাঞ্চল্য

স্টাফ রিপোর্টার: বোমা নিজে তুলতে সাহস না পেয়ে এক কিশোরকে দিয়ে উদ্ধার করালেন সদর থানার এসআই পানু। গতরাত সাড়ে ৯টার দিকে দক্ষিণ হাসপাতালপাড়া জোসার মোড় থেকে বোমা সাদৃশ্য বস্তু কিশোরকে দিয়ে উদ্ধার করানোর দৃশ্য দেখে স্থানীয় সচেতনমহল হতবাক হয়ে পড়ে। অবাক হলেও সত্য যে, ওই কিশোরকে দিয়েই সদর থানায় বোমাটি বালতি বদল করানো হয়।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ার জোসার মোড়ের রাস্তায় গতরাত ৯টার দিকে বোমাসাদৃশ্য বস্তু দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। সদর থানার এসআই পানু সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। বোমাটি তুলে পানিভর্তি বালতিতে কে রাখবে? এরকম মানুষ খুঁজতে শুরু করেন তিনি। এর ওর বলেও যখন সাড়া না পান তখন এগিয়ে আসে এক অবুঝ কিশোর। তাকে দিয়েই বোমাটি রাস্তা থেকে তুলে পানি ভর্তি বালতিতে রাখা হয়। ওই কিশোরকে তুলে নেয়া হয় পুলিশ পিকআপে। সদর থানায় নিয়ে কিশোরকে দিয়েই বালতি বদলের পর তাকে বিদায় করা হয়।

এলাকার একাধিক ব্যক্তি বলেছে, খুব ধীর গতিতে একটি মোটরসাইকেল যায়। মোটরসাইকেলে ছিলো দু যুবক। আরোহীর হাতেই ছিলো একটি বস্তু। মোটরসাইকেলটি জোসার মোড় অতিক্রমের কিছুক্ষণের মধ্যেই স্থানীয়দের দৃষ্টিগোচর হয় বোমা সাদৃশ্য বস্তু। দু দিকে দুটি ইট দিয়ে সকলকে সতর্ক করা হয়। স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিয়ে ভিড় জমাতে থাকে। এক পর্যায়ে কিশোরকে দিয়ে বোমা সাদৃশ্য বস্তুটি রাস্তা থেকে তুলে বালতিতে রাখা হয়। এসআই পানুই শিখিয়ে দেন বোমাটি তোলার সময় সড়কে কীভাবে শুয়ে অবস্থান নিতে হবে। কিশোরকে দিয়ে বোমা উদ্ধারের দৃশ্য পুলিশ অফিসারের দায়িত্বহীনতারই বহির্প্রকাশ। স্থানীয়রা এরকমই মন্তব্য করে বলেছেন, যে অফিসার বোমা উদ্ধারে দক্ষ নয়, তাকে কেন বোমা উদ্ধারে পাঠানো হলো। কেনই বা তিনি একজন কিশোরকে দিয়ে বোমা উদ্ধারের মতো দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিলেন? জবাব মেলেনি।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.