অপহরণ : কৌশলে পালিয়ে ফিরলো বাড়ি?

চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জ থেকে বাড়ি দত্তাইলে ফেরার পথে বিপত্তি!

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সাহেবনগর এলাকা থেকে দুর্বৃত্তরা এক ব্যবসায়ীসহ দুজনকে অপহরণ করেছিলো। গত বৃহস্পতিবার রাতে সরোজগঞ্জ বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে তারা অপহৃত হন। এদের মধ্যে একজনকে দুর্বৃত্তরা ছেড়ে দিলেও রক্তাক্ত জখম অন্যজন কৌশলে পালিয়ে রক্ষা পান। গতকাল শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে বাড়ি ফিরে এসে স্থানীয় পল্লি চিকিৎসক আব্দুল হান্নানের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন রায়হান উদ্দিন।

অপহরণের শিকার ওই দুজন হলেন- সদর উপজেলার দত্তাইল গ্রামের মাঝেরপাড়ার আব্দুল ওহাবের ছেলে মুদিব্যবসায়ী রায়হান উদ্দিন (৩৫) ও পার্শ্ববর্তী শম্ভুনগর গ্রামের স্কুলপাড়ার ধীরেন প্রামাণিকের ছেলে নরসুন্দর সন্ন্যাসী প্রামাণিক (২৫)।

অপহৃত রায়হান জানান, সে এবং সন্ন্যাসী সরোজগঞ্জ বাজার থেকে দুটি বাইসাইকেলে রাত সাড়ে আটটার দিকে বাড়ি ফিরছিলেন। তারা সাহেবনগর ঈদগা মাঠের কাছে পৌঁছুলে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা সাত-আটজন মুখোশধারী সন্ত্রাসী তাদেরকে পথরোধ করে এবং অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে মাঠের ভেতরে নিয়ে যায়। প্রায় এক কিলোমিটার দূরে গিয়ে সন্ন্যাসীকে ছেড়ে দিলেও রায়হানকে আলমডাঙ্গা উপজেলার তিওরবিলা গ্রামের ভাটই নদীর ধারে নিয়ে যায়। ভোররাতে নদী পারাপারের সময় কৌশলে রায়হান দৌঁড়ে পালায়। তবে পালানোর আগে তার শরীরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপ মারা হয়। অপহৃত রায়হান দাবি করেন, মুক্তিপণ আদায়ের জন্য তাকে অপহরণ করা হয়েছিলো। অপহরণকালে রায়হানের কাছ থেকে মোবাইলফোন, টর্চলাইট ও নগদ কিছু টাকা ছিনিয়ে নেই।

শম্ভুনগর গ্রামের সন্ন্যাসী প্রামানিক জানান, তিনি গরিব মানুষ বলায় অপহরণকারীরা তাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার কিছুদূর পরে গিয়ে ছেড়ে দেয়। তিনি বাড়ি ফিরে আসেন। শম্ভুনগর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এএসআই মফিজুর রহমান জানান, ওই দুজনকে মুক্তিপণ আদায়ের জন্য দুর্বৃত্তরা অপহরণ করে। তবে শম্ভুনগর এবং পার্শ্ববর্তী কুতুবপুর ও তিওরবিলা ক্যাম্প পুলিশের যৌথ অভিযানের মুখে দুর্বৃত্তরা অপহৃতদেরকে ফেলে পালিয়ে যায়। ওই দু ব্যক্তির ব্যবহৃত দুটি বাইসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান মুন্সীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি মাথাভাঙ্গাকে বলেন, দুজনের মধ্যে একজনকে অপহরণ করা হলো, অপর একজনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। অপহরণচক্র কবল থেকে পালিয়ে আসার কথা বলেছেন রায়হান। আসলে কি অপহরণ নাকি ঘটনার আড়ালে অন্য কিছু আছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে কোনো মামলা হয়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *