অনলাইনে আবেদনকৃত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ফলাফল প্রকাশ করা হবে আজ

 

 

 

রফিকুল ইসলাম: ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে চুয়াডাঙ্গায় তিনটি সরকারি কলেজসহ ২২টি কলেজে আগামী ২৪ জুন থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। যশোর বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ভর্তি ফি ছাড়া অতিরিক্ত ভর্তি ফি কেউ নিতে পারবেনা। বোর্ডের নীতিমালার ব্যত্যয় ঘটলে বেসরকারি কলেজের ক্ষেত্রে পাঠদানের অনুমতি বা স্বীকৃতি বাতিলসহ কলেজটির এমপিওভুক্তি বাতিল করা হবে এবং সরকারি কলেজের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আজ রোববার অনলাইনে আবেদনকৃত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ফলাফল যশোর বোর্ড থেকে প্রকাশ করা হবে। যশোর বোর্ডকর্তৃক ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে সেশনচার্জসহ পৌর ও উপজেলা এলাকায় ১ হাজার টাকা, পৌর ও জেলা সদর এলাকায় ২ হাজার টাকা এবং মেট্রোপলিটন এলাকায় ৩ হাজার টাকা। দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য যতোদূর সম্ভব সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভর্তি ফি মওকুফ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

চুয়াডাঙ্গা জেলায় মোট ২২টি কলেজ রয়েছে। এর মধ্যে সরকারি কলেজ তিনটি। কলেজগুলো হলো-চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজ, চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজ, বদরগঞ্জ কলেজ, বড়শলুয়া নিউ মডেল কলেজ, তেঁতুল শেখ কলেজ, আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ, এমএস জোহা কলেজ, নিগার সিদ্দিক কলেজ, আলমডাঙ্গা আদর্শ মহিলা কলেজ, খাসকররা কলেজ, ডা. আফসার উদ্দিন কলেজ, হাটবোয়ালিয়া উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ, জামজামি গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, দর্শনা সরকারি কলেজ, দামুড়হুদা ওদুদ শাহ কলেজ, কার্পাসডাঙ্গা কলেজ, দামুড়হুদা পাইলট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, জীবননগর ডিগ্রি কলেজ, জীবননগর আদর্শ মহিলা কলেজ, উথলী মহাবিদ্যালয় ও আন্দুলবাড়িয়া কলেজ।

২০১৪ সালের এসএসসি, দাখিল ও এসএসসি কারিগরি পরীক্ষায় মোট পাশের সংখ্যা ৯ হাজার ২৫০ শিক্ষার্থী। এর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় পাসের সংখ্যা ৭ হাজার ২৮৮টি জন, দাখিল পরীক্ষায় পাসের সংখ্যা ৯৩২ জন শিক্ষার্থী ও কারিগরি পরীক্ষায় পাসের সংখ্যা ১ হাজার ৩০ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ ৫ পাওয়া মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫৬৯ জন। এর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ৩৯৪ জন, দাখিল পরীক্ষায় ৫০ জন ও কারিগরি পরীক্ষায় ১২৫ জন। ২০১৩ সালে চুয়াডাঙ্গা জেলায় এসএসসি, দাখিল ও এসএসসি কারিগরি পরীক্ষায় মোট জিপিএ ৫ পেয়েছিলো ৫০১ শিক্ষার্থী।

চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজে আগামী ২৪ জুন মেধা ও কোটা তালিকার ভিত্তিতে বিজ্ঞান বিভাগে ১৫০ জন শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হবে। বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তির জন্য ফি ধরা হয়েছে ১ হাজার ৯০০ টাকা। ব্যবসায় শিক্ষা মেধা ও কোটা তালিকায় ১৫০ জন ও মানবিক বিভাগে মেধা ও কোটা তালিকায় ১৫০ জন যথাক্রমে ২৫ জুন ও ২৬ জুন ভর্তির হতে পারবে। ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগে ভর্তির জন্য ফি ধরা হয়েছে ১ হাজার ৮৯০ টাকা। মেধাক্রমে স্থান পাওয়া শিক্ষার্থীরা সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টার মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজে ১ম অপেক্ষামান ও ১ম মেধা তালিকায় বাদ পড়া সকল বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীরা আগামী ২৮ জুন বেলা ১০টা থেকে বেলা ১টার মধ্যে ভর্তি হতে পারবে। ভর্তির আবেদনের সময় এসএসসি’র মূল ট্রান্সক্রিপ্ট, প্রশংসাপত্র, প্রবেশপত্র, নিবন্ধনপত্রের ২টি করে ফটোকপি ও পাসপোর্ট সাইজের ৬ কপি এবং স্ট্যাম্প সাইজের ২ কপি ছবি জমা দিতে হবে।

চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ রহমত আলী বিশ্বাস জানান, অনলাইনে ফল প্রকাশের পর মেধাক্রমে স্থান পাওয়া শিক্ষার্থীরা ২৪ জুন থেকে ২৬ জুনের মধ্যে যথাসময়ে ভর্তির প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ কলেজে ভর্তি হতে হবে। অপেক্ষমান ও মেধা তালিকায় যারা ভর্তি হতে পারেনি সেই সব শিক্ষার্থীরা ২৮ জুন ভর্তি হতে পারবে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের উপ-কলেজ পরিদর্শক মো. জিল্লুর রহমান জানান, বোর্ডকর্তৃক নীতিমালার কোনোরুপ ব্যত্যয় ঘটানো হলে বেসরকারি কলেজের ক্ষেত্রে পাঠদানের অনুমতি বা স্বীকৃতি বাতিলসহ কলেজটির এমপিওভুক্তি বাতিল করা হবে এবং সরকারি কলেজের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published.