হ্যাটট্রিকের পর রোনাল্ডোর ডোপ-টেস্ট

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ম্যাচ শেষে হ্যাটট্রিক হিরোকে অভিনন্দন জানাতে ড্রেসিংরুমে ছুঁটলেন রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড়রা। কিন্তু নায়কেরই দেখা নেই। কোথায় গেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো? অ্যাটলেটিকো-পরীক্ষা শেষে রোনাল্ডো তখন দিচ্ছেন আরেক পরীক্ষা। ডোপ-পরীক্ষা! ডোপ টেস্টের জন্য নমুনা সংগ্রহ করতে মাঠ থেকে সরাসরি ল্যাবে নিয়ে যাওয়া হয় রিয়ালের পর্তুগিজ যুবরাজকে। গত মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালের প্রথম লেগে অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে তার দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকের নেপথ্যে অন্য কিছুর যোগসূত্র কী তাহলে খুঁজে পেয়েছে উয়েফা? ঘটনা তা নয়। দৈবয়েন ভিত্তিতে হয়েছে রুটিন ডোপ-টেস্ট ব্যাপারটা নিয়মরক্ষার হলেও রোনাল্ডোর পারফরম্যান্স অবিশ্বাস্য মনে হওয়াটা মোটেও অস্বাভাবিক নয়। প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে টানা দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করলেন। ভাঙলেন-গড়লেন, স্পর্শ করলেন আরও একগুচ্ছ রেকর্ড। রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদানের চোখে, রোনাল্ডো অনন্য। অধিনায়ক সার্গিও রামোসের কণ্ঠেও অভিন্ন সুর। অন্তত গোল করার ক্ষেত্রে রোনাল্ডো যে অনন্য, এ ব্যাপারে দ্বিমত থাকার কথা নয় কারও। কিন্তু গোলের সংখ্যা নিয়ে দেখা দিয়েছে বিভ্রান্তি। দিন দশেক আগেই বার্সেলোনার জার্সিতে ৫০০ গোলের মাইলফলক ছুঁয়েছেন মেসি। তার জবাবেই যেন রিয়ালের জার্সিতে রোনাল্ডোর ৪০০ গোলের মাইলফলক ছোঁয়ার কীর্তিটা বেশ ঘটা করে উদযাপন করলো ক্লাব কর্তৃপক্ষ। রিয়ালের ওয়েবসাইটে ৪০০তম গোলের জন্য অভিনন্দন জানানো হয়েছে রোনাল্ডোকে। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক ‘মার্কা’ এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। রোনাল্ডো নিজেও বলেছেন, ‘দারুণ একটি হ্যাটট্রিক এবং রিয়ালের হয়ে ৪০০ গোল করতে পেরে আমি খুবই খুশি।’

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *