সৌম্য-মোস্তাফিজরাই এখন দুশ্চিন্তা

 

স্টাফ রিপোর্টার: ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে হতাশ করেছেন বাংলাদেশ দলের তরুণ খেলোয়াড়েরা। শুধু কি এই টুর্নামেন্টেই ভালো করতে পারেননি তরুণেরা? ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সাফল্যযাত্রার শুরু মূলত ২০১৫ সাল থেকে। এই সময় থেকে বাংলাদেশের ধারাবাহিক ভালো খেলা শুরু। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সাফল্য পেয়েছিলো তরুণ-অভিজ্ঞের ডানায় চড়ে। সিনিয়র-জুনিয়ররা জ্বলে উঠেছিলেন একসাথে। ২০১৯ বিশ্বকাপে এই তরুণেরাই নেতৃত্ব দেবেন বলে প্রত্যাশা। কিন্তু যে তরুণেরা বাংলাদেশের ক্রিকেটে এক পশলা স্বস্তির সুবাতাস নিয়ে এসেছিলেন, তারাই এখন হয়ে উঠছেন দুশ্চিন্তার কারণ। গত দেড় বছরে তরুণ ও অভিজ্ঞের এই কাঁধ মিলিয়ে লড়াইটায় ছন্দপতন ছিলো।

২০১৫ সালে যে টানা চারটি ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ, প্রতিটি দেশের মাঠে। কিন্তু গত দেড় বছরে বাংলাদেশ বেশির ভাগ খেলেছে বিদেশে। অচেনা কন্ডিশন কিংবা প্রতিপক্ষের মাঠে সিনিয়ররা নিজেদের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে মানিয়ে নিতে পারলেও সেটি পুরোপুরি পারেননি তরুণেরা। এর প্রভাব পড়েছে পারফরম্যান্সে। ব্যাটিংয়ে ২০১৫ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের গড় ছিলো ৩৩.৮৮, গত দেড় বছরে সেটি ৩০.৪৪। অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্সে খুব একটা পার্থক্য না থাকলেও তরুণদের কিছুটা ছন্দপতন হয়েছে। ২০১৫ সালে তরুণদের ব্যাটিং গড় যেমন ছিলো ২০.২৪, এখন সেটি ১৭।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.