সাকিব যে কারণে খেলতে পারছেন না

স্টাফ রিপোর্টার: ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যস্ত দেশের তারকা ক্রিকেটাররা। টাইগারদের ব্যস্ত সময়ে অলস সময় পার করছেন সাকিব আল হাসান। ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও খেলা হচ্ছে না বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের প্লেয়ার বাই চয়েজ অনুসারে সাকিবকে নিজেদের করে নেয় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। জাতীয় দলের খেলা থাকায় লিগের প্রথম পর্বের ম্যাচগুলোতে অংশ নিতে পারেননি জাতীয় দলের অধিনায়ক। গত ২৭ জানুয়ারি ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইনজুরিতে আক্রান্ত হন টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক। এই ইনজুরির কারণে জাতীয় দল তো দূরে থাক; ঘরোয়া ক্রিকেটেও খেলতে পারেননি সাকিব। দীর্ঘদিন মাঠের বাইরে থাকায় সাকিবহীন মোহামেডান সুপার লিগের দৌড়ে পেছনে পড়ে যায়। এখন সাকিব যখন খেলার জন্য ফিট তখন খেলায় নেই তার দল মোহামেডান। যে কারণে ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও খেলা হচ্ছে না সাকিবের। প্রিমিয়ার গিলের প্রথম পর্বের খেলা শেষে সুপার লিগ নিশ্চিত করা লিজেন্ড অব রুপগঞ্জ অবশ্য সাকিবকে খেলাতে চেয়েছিলো। কিন্তু বাইলজের নীতিবহির্ভূত হওয়ায় দেশসেরা এই ক্রিকেটারকে খেলাতে পারছে না রুপগঞ্জ। এ ব্যাপারে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসের (সিসিডিএম) সমন্বয়ক আমিন খান জানান, ‘সাকিব খেলার ইচ্ছে প্রকাশ করায়, রুপগঞ্জ তাকে খেলাতে চেয়েছিলো। কিন্তু বাইলজে বলা আছে প্লেয়ার ড্রাফটের পরে খেলা শুরুর আগ পর্যন্ত, কোনো ক্লাব ইচ্ছে করলে অন্য ক্লাবের সঙ্গে আপসের মাধ্যমে দুজন ক্রিকেটারকে ছাড়তে পারবে এবং একজনকে নতুন করে নিতে পারবে। এটা শুধু মাত্র লিগ শুরুর আগ পর্যন্ত। রুপগঞ্জ যেহেতু লিগ শুরুর আগে সাকিবে দলে নেয়নি, সো এখন নেয়ার সুযোগ নেই।’ মূলত এ কারণেই সুপার লিগে খেলা হচ্ছে না সাকিবের। শ্রীলঙ্কায় সদ্য শেষ হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালের ঠিক দুই ম্যাচ আগে ইনজুরি কাটিয়ে পেশাদার ক্রিকেটে ফিরেছেন সাকিব। বাঁহাতের আঙুলের চোট কাটিয়ে খেলায় ফেরা এই অলরাউন্ডার আসন্ন আইপিএলের প্রস্তুতি জোরদার করতে সুপার লিগের কয়েকটা ম্যাচ খেলার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। এখন জাতীয় দলের খেলা না থাকায় তার সেই ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে না। ৭ এপ্রিল থেকে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১১তম আসর শুরু হবে। এবারের আইপিএলে হায়দরাবাদের হয়ে খেলার কথা রয়েছে সাকিব আল হাসানের। আর কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান খেলবেন গত আসরের চ্যাম্পিয়ন্স মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *