শেষ বিকেলে বাংলাদেশের হতাশা

স্টাফ রিপোর্টার: গোলমালটা হলে গেলো শেষ সেশনেই। বেশ স্বস্তি নিয়েই চা-বিরতিতে গিয়েছিলো বাংলাদেশ। একসময় দলের স্কোর ছিলো ৪ উইকেটে ৩০১। নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের জবাবটা বাংলাদেশ ভালোমতোই দেবে বলে মনে হচ্ছিলো। কিন্তু ছয় বলের মধ্যে মমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিমের বিদায়। এরপর দিনের খেলা চার ওভার বাকি থাকতে নাসির হোসেনের একটা বাজে শট হিসাব পাল্টে দিলো। ৭ উইকেটে ৩৮০ রান নিয়ে চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ড এখনো এগিয়ে আছে ৮৯ রানে। দিনের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি মমিনুলের দুর্দান্ত এক ইনিংস। নিজের মাত্র চতুর্থ টেস্টেই এ ২২ বছর বয়সী ডাবল সেঞ্চুরির দেখা প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন। মাত্র ১৯ রানের জন্য দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে সেই কৃতিত্বটা পাওয়া হলো না। মমিনুল আউট হয়েছেন ১৮১ রানে। ২৭৪ বলের ইনিংসটায় ২৭টি চার মেরেছেন এ বাঁ-হাতি।

মমিনুলই দুটো শতরানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে অবশ্য বিপদমুক্ত করেছেন। আগের দিনের সঙ্গী মার্শাল আইয়ুবের সাথে তার জুটিটা ১২৬ রানের। সাকিব আল হাসানের সাথে ৪৬ রানের জুটি গড়ার পর পঞ্চম উইকেটে মুশফিকের সাথে গড়েন ১২১ রানের জুটি। ভালো খেলতে থাকা অধিনায়ক মুশফিক আউট হয়েছেন ৬৭ রান করে। মুশফিকের বিদায়ের আগের ওভারেই অ্যান্ডারসনের বলে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়েন মমিনুল। দলীয় ৩০১ রানেই দু থিতু হয়ে যাওয়া ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ।

এরপর নাসির ও সোহাগ গাজীর ঝড়ো জুটিটা ৭০ রান তুলেও ফেলেছিলো। কিন্তু অভিষিক্ত সোধিকে তার প্রথম টেস্ট উইকেটটা নাসির একরকম উপহারই দিয়ে আসেন ৪৬ রান করার পর। ২৮ রানে অপরাজিত আছেন সোহাগ। সঙ্গী রাজ্জাকের রান ১। এর আগে দিনের প্রথম সেশনেই মার্শালের (২৫) উইকেট হারায় বাংলাদেশ। লাঞ্চের পর বিদায় নেন সাকিবও (১৯)। তবে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ক্ষতিটা হয়েছে দিনের তৃতীয় ও শেষ সেশনেই। এ সেশনেই তিন উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ।

আজ প্রথম সেশনটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সেশনের ওপরই নির্ভর করছে বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ডকে প্রথম ইনিংসে লিড দেবে কি-না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *