রোনালদোর হ্যাটট্রিকে রিয়ালের দারুণ সূচনা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর হ্যাটট্রিকে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দশম শিরোপা জয়ের মিশন দারুণভাবে শুরু করলো রিয়াল মাদ্রিদ। গত মঙ্গলবার রাতে তুরস্কের গ্যালাতাসারাইকে তাদেরই মাঠে ৬-১ গোলের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ইউরোপের সবচেয়ে সফল দলটি। রোনালদোর হ্যাটট্রিক ছাড়াও ‘বি’ গ্রুপের এ ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে করিম বেনজেমা দুটি ও মিডফিল্ডার ইসকো একটি গোল করেছেন।

প্রতিপক্ষের মাঠ তুর্ক টেলিকম অ্যারেনায় ৩৩ মিনিটে আর্জেন্টিনার মিডফিল্ডার আনহেল ডি মারিয়ার পাস থেকে দারুণ এক গোলে রিয়ালকে এগিয়ে নেন ২১ বছর বয়সী স্পেনের ইসকো। এ গোলের পর রিয়ালের আক্রমণের ধারও বেড়ে যায়। প্রথমার্ধে অবশ্য আর কোনো গোল হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধের ছয় গোলের বন্যার শুরু নবম মিনিটে। অবশ্য ফরাসি স্ট্রাইকার বেনজেমার প্রথম গোলে প্রতিপক্ষের ব্রাজিল মিডফিল্ডার ফেলিপে মেলোর অবদানই বেশি। তার বাজে হেডে বল পেয়ে যান বেনজেমা আর তা থেকে ডান কোণা দিয়ে জলে বল জড়াতে কোনো ভুল করেননি তিনি। ৮১ মিনিটে ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ও দলের পক্ষে পঞ্চম গোলটি করেন ফরাসি এ স্ট্রাইকার। এর মাঝে তিন মিনিটের ব্যবধানে প্রথম দুটি গোল করেন রোনালদো। ৬৩ মিনিটে ডি মারিয়ার ক্রসের পর ইসকোর হেড থেকে বল পেয়ে সহজেই লক্ষ্যভেদ করেন পর্তুগাল তারকা। ৬৬ মিনিটে গ্যারেথ বেলের ফ্রি-কিক থেকে রামোসের জোরালো হেড গ্যালাতাসারাইয়ের উরুগুয়ের গোলরক্ষক ফার্নান্দো মুসলেরা দারুণ দক্ষতায় ঠেকিয়ে দিলেও তা থেকে বল পেয়ে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন রোনালদো।

সবশেষে ইনজুরি সময়ে করিম বেনজেমার পাস থেকে দুর্দান্ত শটে পোলপোস্টের ডান দিকের উপরের কোণা দিয়ে বল জালে জড়ান ২৮ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড। ৮৪ মিনিটে স্বাগতিকদের পক্ষে সান্তনাসূচক একমাত্র গোলটি করেন উমুত বুলুত। বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার গ্যারেথ বেলকে শুরুর একাদশে রাখেননি রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তি। ওয়েলস ফরোয়ার্ডকে ম্যাচের ৬৪ মিনিটে মাঠে নামান তিনি। দল জিতলেও গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াসের জন্য চরম হতাশায় শেষ হলো দিনটি। গত জানুয়ারি থেকে রিয়ালের প্রথম একাদশের বাইরে ছিটকে পড়েছিলেন তিনি। দীর্ঘ বিরতির পর এদিন তিনি জায়গা করে নিয়েছিলেন সেরা একাদশে। কিন্তু দুর্ভাগ্য আর পিছু ছাড়লো না। ১১ মিনিটে সতীর্থ ডিফেন্ডার স্যার্হিও রামোসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁজরে আঘাত পান তিনি। শুরুতে চোট খুব একটা গুরুতর মনে না হলেও খানিক বাদে মাঠের বাইরে চলে যান ক্যাসিয়াস।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *