মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার বড় জয়

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: লিওনেল মেসির হ্যাটট্রিকের সুবাদে ভায়েকানোর বিপক্ষে ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানে জিতেছে লুইস এনরিকের দল বার্সেলোনা। এ জয়ের ফলে লা লিগা পয়েন্ট টেবিলে আতলেতিকো মাদ্রিদের চেয়ে আট পয়েন্টে এগিয়ে গেল বার্সেলোনা। ২৭ ম্যাচে শীর্ষে থাকা দলটির পয়েন্ট ৬৯। দ্বিতীয় স্থানে থাকা দিয়েগো সিমেওনের দলের পয়েন্ট ৬১। গত বৃহস্পতিবার রাতে শুরুতে অবশ্য কিছুটা অনুজ্জ্বলই ছিলো বার্সেলোনা। ২১তম মিনিটে প্রথম সুযোগেই দলকে এগিয়ে দেন ইভান রাকিতিচ। এক মিনিট বাদেই মেসি-নেইমারের দারুণ বোঝাপড়ায় ব্যবধান বাড়ায় বার্সেলোনা। মেসি পান নিজের প্রথম গোল। দু মিনিটের মধ্যে দু গোলে পিছিয়ে পড়া ভায়েকানো ৪২তম মিনিটে বড় ধাক্কা খায়; ইভান রাকিতিচেক ফাউল করায় সরাসরি লালকার্ড দেখেন তাদের স্প্যানিশ ডিফেন্ডার হাভিয়ের লরেন্তে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান আরও বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিলেন নেইমার, কিন্তু শট একটুর জন্যে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এর ছয় মিনিট বাদেই অবশ্য স্কোরলাইন ৩-০ করেন মেসি। সুয়ারেসের জোরালো শট পোস্টে লেগে ফিরলে বল পেয়ে যান আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। সহজেই গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন দলের সেরা তারকা। ৫৭তম মিনিটে একটি গোল শোধ করে কিছুটা লড়াইয়ের আভাস দিয়েছিলো স্বাগতিকরা। খুব কাছ থেকে হেডে বল জালে জড়ান অ্যাঙ্গোলার ফরোয়ার্ড মানুচো। লড়াইয়ের সম্ভাবনা জাগালেও অবশ্য এক জন কম নিয়ে পেরে ওঠেনি ভায়েকানো। ৬৩-৬৮তম মিনিটের মধ্যে নেইমার-সুয়ারেসরা কয়েকটি সুযোগ না হারালে এ সময়ে ব্যবধান বাড়তে পারতো। এর মধ্যে ৬৬তম মিনিটে নেইমারের ফ্রি-কিক ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। ফিরতি বল ফাঁকায় দাঁড়ানো সের্হিও বুসকেতস অনায়াসে জালে জড়াতে পারতেন, কিন্তু শট নেওয়ার আগ মুহূর্তে তাকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন চিলির মিডফিল্ডার মানুয়েল ইতুরা। পেনাল্টি পায় বার্সেলোনা, মেসির হ্যাটট্রিকের সুযোগ থাকলেও সুয়ারেসকে স্পটকিক নিতে দেন। কিন্তু উরুগুয়ের এ স্ট্রাইকারের ব্যর্থতায় ব্যবধানে বাড়েনি।

তিন মিনিট বাদেই অবশ্য হ্যাটট্রিক পূরণ করেন মেসি; নয় জনের দল ভায়েকানোর রক্ষণের দুর্বলতা এখানে স্পষ্ট হয়ে ওঠে। মাঝ মাঠের কিছুটা ভেতর থেকে বল পায়ে দৌড়ে বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এবারের ফিফা ব্যালন ডি.অর জয়ী তারকা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *