মেসির জোড়া গোলেও জয় পেল না বার্সেলোনা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: লা লিগার শিরোপা আগের ম্যাচেই নিশ্চিত করেছিলো বার্সেলোনা। দেপোর্তিভোর বিপক্ষে ম্যাচটি তাই খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ ছিলো না কাতালানদের জন্য। তবে জয় দিয়ে লা লিগায় জাভির শেষ ম্যাচকে স্মরণীয় করে রাখতে পারতো বার্সেলোনা। কিন্তু পারেনি। লিওনেল মেসির জোড়া গোলে এগিয়ে গিয়েও দেপোর্তিভোর সাথে ২-২ গোলে ড্র করেছে বার্সেলোনা। অবশ্য ট্রফি হাতে উৎসবটা বেশ ভালো মতোই করেছেন চ্যাম্পিয়নরা।

গত শনিবার লিগে মরসুমের শেষ ম্যাচে ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুয়ে খেলার শুরুতেই এগিয়ে যায় বার্সা। পঞ্চম মিনিটে গোলের সূচনা করেন বার্সার আর্জেন্টাইন তারকা মেসি। সতীর্থ রাফিনহার ক্রস থেকে হেডে দেপোর্তিভোর জালে বল জড়ান চার বারের ফিফা বর্ষসেরা এই খেলোয়াড়। লা লিগার এ মরসুমে এটা মেসির ৪২তম গোল। এরপর ১৪ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে পারতো বার্সার। তবে মেসির একটি গোল অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেন রেফারি। ১৭ মিনিটে ডি-বক্সের সামনে থেকে মেসির বাঁ পায়ের জোরালো শট ঠেকিয়ে দেন দেপোর্তিভোর গোলরক্ষক ফ্যাব্রিসিও। ফিরতি বলে শট নিয়েছিলেন পেদ্রো। কিন্তু সেটাও প্রতিহত করেন অতিথি গোলরক্ষক। ৪৩ মিনিটে ভালো একটি আক্রমণ করে বার্সা। দেপোর্তিভোর দুই খেলোয়াড়কে কাটিয়ে বক্সের সামনে জাভিকে পাস দেন নেইমার। লা লিগায় বার্সার জার্সিতে শেষ ম্যাচ খেলতে নামা জাভির শট অবশ্য প্রতিহত করেন অতিথি ডিফেন্ডার। ফলে প্রথমার্ধে আর কোনো গোল হয়নি। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বার্সা। বিরতির পর ৫৯ মিনিটে মেসি-নেইমারের নৈপূণ্যে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বার্সা। মাঝ মাঠ থেকে বল টেনে নিয়ে গিয়ে দেপোর্তিভোর বক্সে ঢুকে মেসিকে বল দেন নেইমার। ব্রাজিল তারকার বাড়ানো বল থেকে নিজের দ্বিতীয় গোলে স্কোরলাইন ২-০ করেন আর্জেন্টাইন তারকা মেসি। এর মাধ্যমে লা লিগার এ মৌসুমে মেসির গোলসংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৪৩টি। ম্যাচের ৬৭ মিনিটে একটি গোল শোধ করেন দেপোর্তিভোর লুকাস পেরেজ। বক্সের সামনে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন এই স্প্যানিশ স্ট্রাইকার। ৭১ মিনিটে সমতায় ফিরতে পারতো অতিথিরা। ক্রসবার রক্ষা করে বার্সাকে। দেপোর্তিভোর মেডুনজানির ফ্রি-কিক ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে।

পাঁচ মিনিট পরই অবশ্য সমতায় ফেরে দেপোর্তিভো। বক্সের সামনে বার্সার ডিফেন্ডার জেরমি ম্যাথিউ হ্যান্ডবল করলে ফ্রি-কিক দেন রেফারি। ফ্রি-কিক বার্সার রক্ষণ দেয়াল প্রতিহত করলেও বক্সের ভেতর থেকে দারুণ এক শটে লক্ষ্যভেদ করেন দেপোর্তিভোর দিয়েগো সালোমাও। ৮৬ মিনিটে বিদায়ী জাভিকে উঠিয়ে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তাকে মাঠে নামান বার্সা কোচ লুইস এনরিক। ক্যাম্প ন্যুয়ের ৮৯ হাজার দর্শক দাঁড়িয়ে করতালির মাধ্যমে জাভিকে বিদায় জানান। যদিও ঘরের মাঠে আগামী ৩০ মে কোপা দেল রের ফাইনালে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে খেলবেন জাভি। তবে লা লিগায় ছিল এটাই তার শেষ ম্যাচ। ম্যাচের শেষ পর্যন্ত আর কোনো গোল হয়নি। ফলে ২-২ গোলে ড্র হয় ম্যাচটি। ম্যাচের পর ক্যাম্প ন্যুয়ে অবশ্য চমৎকার এক পরিবেশ তৈরি হয়। চোটের কারণে ম্যাচে খেলতে না পারা লুইস সুয়ারেজ মাঠে নেমে আসেন তার দুই সন্তানকে নিয়ে। মেসির মাথায় দেখা যায় তার ছেলে থিয়াগোকে। পিকে কোলে করে নিয়ে আসেন তার ছোট ছেলেকে। ডাগ আউটে বার্সার খেলোয়াড়দের স্ত্রী-বান্ধবীদেরও দেখা যায়। এরপর চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক জাভির হাতে তুলে দেওয়া হয় ট্রফি। ট্রফি নিয়ে উৎসবে মাতেন লা লিগার চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনার খেলোয়াড়রা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *