ভারত বক্সিং ডে টেস্ট না খেলায় হতাশ দক্ষিণ আফ্রিকা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: চলতি বছরের শেষ দিকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ভারতীয় দলের বক্সিং ডে টেস্ট না খেলার সিদ্ধান্তে হতাশ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট (সিএসএ)। আসন্ন সফরের সূচিতে অঘোষিত রীতিতে পরিণত হওয়া বক্সিং ডে টেস্ট খেলার কথা ছিলো ভারতের। কিন্তু দলের প্রস্তুতির অভাবে ঐতিহাসিক এ ম্যাচ খেলতে পারছেনা বলে সিএসএকে জানিয়ে দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ভারতীয় দল বর্তমানে শ্রীলঙ্কা সফর করছে। সেখান থেকে ফিরে নিজ মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দলটি। তবে অস্ট্রেলিয়া সিরিজ শেষ করে স্বাধীনতা কাপ খেলতে আবারো লঙ্কা সফর করবে ভারত এবং এ সফরের কারণে প্রস্তাবিত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কিছুটা পরিবর্তন এনেছে বিসিসিআই। লঙ্কা সফরের ধকল কাটিয়ে উঠতে বিসিসিআই খেলোয়াড়দের যথেষ্ট সময় দিতে চায়। যে কারণে নতুন বছরের টেস্ট ম্যাচটি শুরু হতে দেরি হতে পারে। বিসিসিআইর এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা যথাসময়ে সেখানে যেতে পারছিনা। দলের শ্রীলঙ্কা সফর শেষ হবে ২৪ ডিসেম্বর। তারপর ছেলেদের কিছু দিন বিশ্রাম দরকার।

‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফর অনেক লম্বা। সুতরাং দলের অন্তত দুটি অনুশীলন ম্যাচ খেলা প্রয়োজন। প্রথম টেস্ট শুরুর আগে এ জন্য কমপক্ষে ১০ দিন দরকার।’ দক্ষিণ আফ্রিকায় হোম লঙ্গার ভার্সন মরসুমে বক্সিং ডে ও নতুন বছরের টেস্টে প্রথাগতভাবেই সবচেয়ে বেশি দর্শক মাঠে উপস্থিত হয়ে থাকে এবং এ সংবাদ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটের জন্য একটি বড় ধাক্কা। তবে বক্সিং ডে টেস্টের সময়টা পূরণ করতে সিএসএ অন্য উদ্যোগ নিতে পারে। হতে পারে তারা মাত্র একটি ম্যাচ খেলার জন্য পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানাবে। আবার সর্বশেষ টেস্ট মর্যাদা পাওয়া আফগানিস্তানের কথাও বিবেচনা করছে সিএসএ। দক্ষিণ আফ্রিকান প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান টনি আইরিশ বলেন, বক্সিং ডে টেস্ট না-ও হতে পারে বলে আমি অবগত হয়েছি। তবে নতুন বছরের টেস্টের জন্যও তাদেরকে (ভারত) না পাওয়াটা সিএসএ এবং দর্শকদের জন্য একটা বড় ধাক্কা হবে।’

বক্সিং ডে টেস্ট না হওয়াটা অনেক বড় বিষয় তবে দুইটিই না হলে সেটা ভক্তরা অনেক বড় কষ্ট পাবে। আগামী মাসে বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজ দিয়ে নিজেদের হোম সিজন শুরু করবে দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর ভারত ও অস্ট্রেলিয়া দলকে আতিথেয়তা দেবে সিএসএ।

Leave a comment

Your email address will not be published.