বিতর্কিত গোলে গ্রুপ পর্বেই বিদায় ব্রাজিলের

রুইদিয়াজ গোলটি হাত দিয়েই করেছিলেন! হ্যাঁ, হাত দিয়েই! রেফারির চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল তা। সহকারী রেফারির সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেছেন ঠিকই, কিন্তু তাতে ধরতে পারেননি রুইদিয়াজের পাপ। বিতর্কিত এই গোলে পেরুর কাছে হেরেই কোপা আমেরিকা শতবর্ষী প্রতিযোগিতার গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে ব্রাজিল।
ড্র করলেই গ্রুপ ‘বি’র চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই শেষ আটে নাম লেখাতে পারত ব্রাজিল। কিন্তু হেরে যাওয়াতে গ্রুপ রানার্সআপও হতে পারেনি তারা। এই গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গেছে ইকুয়েডর।
১৯৮৭ সালের পর এই প্রথম কোপা আমেরিকার গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় ঘটল ব্রাজিলের। খেলার শুরু থেকে আক্রমণাত্মক হয়েও গোলমুখে মুখ থুবড়ে পড়ছিল হলুদ জার্সির সব প্রচেষ্টা। কিন্তু এত চড়া মাশুল গুনতে হবে, ব্রাজিল যেন স্বপ্নেও ভাবেনি। ব্রাজিলের ভাগ্য বিপর্যয় ঘটে শেষ বাঁশি বাজার ১৬ মিনিট আগে। ডান প্রান্ত থেকে আন্দি পোলোর ক্রস রিসিভ করার সময় হাত ব্যবহার করেছিলেন রুইদিয়াজ। পুরোপুরি চোখ এড়িয়ে যায় উরুগুইয়ান রেফারি আন্দ্রেস কুনহার। সহকারী রেফারির সঙ্গে কথা বলেছিলেন ঠিকই, কিন্তু তার থেকে কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেননি। এদিকে টেলিভিশন রিপ্লে দেখে সিদ্ধান্ত দেওয়ার কোনো ব্যবস্থাও কোপা শতবর্ষী প্রতিযোগিতায় রাখা নেই। ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের তীব্র ক্ষোভ আর প্রতিবাদের মুখেও রেফারি গোলের বাঁশি বাজান। পুরো ম্যাচে শ্রেয়তর দল হয়েও গোল করতে না পারার ব্যর্থতাও কিন্তু পোড়াবে ব্রাজিলীয় দলকে। এমনকি খেলার শেষ দিকে এলিয়াস পেরু গোলকিপারকে একা পেয়ে যে সুযোগ হাতছাড়া করেছেন, সেটাকে কীই–বা বলা চলে! সেন্টার হাফ মিরানদাও স্বীকার করেছেন ব্যাপারটা, ‘পুরো খেলায় আপনি যখন একটার পর একটা সুযোগ নষ্ট করবেন, তার খেসারত দিতে হবে বৈকি!’
কিন্তু সেই খেসারত মানে কোপা থেকে এত তাড়াতাড়ি বিদায়! বাংলাদেশে কোপার আনন্দ তো অর্ধেক নষ্টই হয়ে গেল!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *