বার্সেলোনায় ভক্তদের কবলে সুয়ারেস

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ফুটবল খেলতে নেমে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে কামড়ালেহেনস্তা তো হতেই হবে,সমালোচনার বিষাক্ত তির ও সইতে হবে। আর এমন কাণ্ডবারবার ঘটালে, সেটা পাগলামি ছাড়া কি?তারপরও লুইস সুয়ারেসের জনপ্রিয়তাকমেনি। ফিফার নিষেধাজ্ঞার কারণে নতুন ঠিকানা বার্সেলোনার জার্সিতে এখনও তারআনুষ্ঠানিক পরিচয় হয়নি,কিন্তু বার্সা সমর্থকরা তাকে আপন করে নিতে দেরিকরেনি।

সম্প্রতি বার্সেলোনার রাস্তায় স্ত্রী সোফিয়া বালবির সাথে সুয়ারেসঘুরতে বেরোলে ভক্তরা তাকে ঘিরে ধরে,সুয়ারেসও হাসিমুখে তাদের অটোগ্রাফ,ফটোগ্রাফেরচাহিদা মিটিয়েছেন। এ সময় এক সমর্থকের মেসির জার্সিতে অটোগ্রাফ দেন সুয়ারেস।একবার নয়, তিন তিনবার প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে কামড়ে সমালোচিত হয়েছেনসুয়ারেস। প্রতিবার কঠিন শাস্তিও পেয়েছেন উরুগুয়ের এ স্ট্রাইকার। সবশেষ,গত সপ্তাহেশেষ হওয়া ব্রাজিল বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে ইতালির জর্জো কিয়েল্লিনির কাঁধে কামড় দিয়েনয়টি আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হন সুয়ারেস।তাছাড়া ২৭ বছর বয়সী এ স্ট্রাইকারকে ফুটবল সম্পর্কিত সমস্ত কর্মকাণ্ডেচার মাসের জন্য নিষিদ্ধ করে ফিফা।অবশ্য লিভারপুল থেকে সুয়ারেসের বার্সেলোনায় যোগ দেয়ার পথে কোনোবাধা হয়নি ফিফার এই শাস্তি।

Leave a comment

Your email address will not be published.