বলের আঘাতে পাকিস্তানি ক্রিকেটারের মৃত্যু

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ক্রিকেট বলের আঘাতে ঝড়ে গেল আরেক ক্রিকেটার। প্রতিপক্ষ বোলারের বাউন্সার মাথায় লেগে প্রাণ হারালেন পাকিস্তানের তরুণ ক্রিকেটার জুবায়ের আহমেদ। গত ১৪ আগস্ট পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসের দিন মারদানে ক্লাব ম্যাচে মাথায় বলের আঘাত পেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। এরপর আর উঠে দাঁড়াতে পারেননি জুবায়ের। পরে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উদীয়মান এই ক্রিকেটারের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে নিজেদের অফিসিয়াল টুইটার পেইজে পিসিবি উল্লেখ করে, ‘জুবায়ের আহমেদের মর্মান্তিক মৃত্যু আরো একবার স্মরণ করিয়ে দিলো সবসময় সুরক্ষার জন্য হেলমেট পরিধান করা দরকার। জুবায়েরের পরিবারের প্রতি আমাদের সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।’ ব্যাটিং করার সময় জুবায়েরের মাথায় হেলমেট ছিলো না।

পাকিস্তানের ঘরোয়া আসরে লিস্ট ‘এ’তে ৪টি ম্যাচ খেলেছেন যুবায়ের। এছাড়া টোয়েন্টি টোয়েন্টি ক্রিকেট কোয়েটা বিয়ার্সের হয়ে খেলছেন তিনি।  বাউন্সারে বলের আঘাতে মাথায় ব্যথা পেয়ে জুবায়েরের মৃত্যু মনে করিয়ে দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার ফিলিপ হিউজের স্মৃতি। ২০১৪ সালের ২৫ নভেম্বর অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেট নিউ সাউথ ওয়েলসের পেসার শন অ্যাবোটের বাউন্সার হুক করতে গিয়ে আঘাত পেয়েছিলেন হিউজ। কয়েক সেকেন্ড দাঁড়িয়ে ছিলেন হিউজ। পরক্ষণেই ২২ গজের ক্রিজে লুটিয়ে পড়েন। এরপর সিডনির এক হাসপাতালে নিয়ে হিউজের মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারও করানো হয়। কিন্তু কোনো কিছুতেই রক্ষা হয়নি তার। তাই ২৭ নভেম্বর না ফেরার দেশে চলে যান হিউজ। জুবায়ের-হিউজের মতো আরও অনেকেরই এমন মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে এখন পর্যন্ত। ঢাকায় ১৯৯৮ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে ফিল্ডিং করার সময় প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানের মারা বলে মাথায় আঘাত পেয়ে মারা যান আবাহনীর হয়ে খেলতে নামা ভারতের রমন লাম্বা। এটিও ক্রিকেট বিশ্বে মর্মান্তিক মৃত্যুর মধ্যে অন্যতম।

Leave a comment

Your email address will not be published.