প্রস্তুতি ম্যাচে মুশফিকদের হার

স্টাফ রিপোর্টার: অনুশীলন ম্যাচটি ছিলো একদিনের। তবে ৬০ ওভার করেইনির্ধারণ করা হয়েছিলো। কিন্তু বেরসিক বৃষ্টির হানা। ওভার কমিয়ে দেয়া হলো আরও৪টি। জাতীয় দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে বিসিবি লাল দল মাশরাফিরসবুজ দলের বিপক্ষে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে প্রস্তুতি ম্যাচেমুখোমুখি হয় গতকাল। ম্যাচটি খেলা হয় শাদা পোশাক ও লাল বলে। এতে দিন শেষেজাতীয় দলের অধিনায়ক মুশফিকের দলকে ৭ উইকেটে হারায় মাশরাফির সুবজ দল। প্রথমেব্যাট করতে নেমে এক উইকেট হারিয়ে লাল দল ১৬৭ রান সংগ্রহ করে ৫৪ ওভারে। আরজবাব দিতে নেমে দিন শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত ব্যাটে রীতিমতো ঝড়ই তুলেছিলেনসবুজ দলের ব্যাটসম্যানরা। ৪৮ ওভারেই তারা স্কোর কার্ডে যোগ করেন ২৪৩ রান।ওপেনার শামসুর রহমান শুভ ও নাসির হোসেনের ফিফটিতে ভর করেই বড় সংগ্রহ করতেসক্ষম হয় সবুজ দল। মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করেন তারা। ওয়েস্ট ইন্ডিজসিরিজকে সামনে রেখে জাতীয় দলের অনুশীলনের অংশ হিসেবে এই ম্যাচ আয়োজন করেনপ্রধান কোচ হাথুরুসিংহে।

১৬৭ রানের জবাব দিতে নেমে লাল দলের মতোইশুরুতেই হোঁচট খায় সবুজ দল। মাত্র ৫ রানেই তারা হারায় ওপেনার ইমরুলকায়েসকে। তাকে সাজ ঘরের পথ দেখান পেস তারকা আল আমিন হোসেন। তবে জাতীয় দলেসুযোগ না পাওয়া আরেক ওপেনার শামসুর রহমান শুভ ৬১ বলে ৬৪ রান করে দলকে এগিয়েনেন। তাকে ব্যক্তিগত ৪০ রান করে সঙ্গ দেন মার্শাল আইযুব। তারা দু’জন অবসরনিলে ব্যাট হাতে সুযোগ পান মোহাম্মদ মিঠুন ও শুভাগত হোম। কিন্তু মাত্র ১২রানেই পেসার আল আমিনের দ্বিতীয় শিকার হন শুভাগত। তবে জাতীয় দলে দ্বিতীয়বারসুযোগ পাওয়া মিঠুন নিজেকে প্রমাণ করার পথে আউট হন ৪০ রান করে। তাকেফিরিয়েছেন পেসার রুবেল হোসেন। তবে  দারুণ ব্যাট চালিয়ে ফর্মের ইঙ্গিত দেননাসির হোসেনও। তিনি ৬৯ বলে ৫৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। তার সাথে ১৭ রান করেঅপরাজিত ছিলেন মুক্তার আলী। এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে  হোঁচট খায় লালদল। দলীয় ১১ রানেই ওপেনার এনামুল হক বিজয়কে ২ রানে সাজঘরের পথ দেখান তরুণপেসার তাসকিন আহমেদ। তবে দলের হাল ধরেন আরেক ওপেনার তামিম ইকবাল। তামিম আউটনা হলেও অবসরে যান বাকিদের সুযোগ দিতে।  ক্রিজে ছাড়ার আগে তামিম করেন ৪৪রান। তবে নিজের স্বভাববিরুদ্ধ ব্যাটিঙে তামিম এ রান করেন ১০২ বলে। এতেচারের মার ছিলো ৫টি। বহুদিন পর ব্যাটে রান পেলেও তার এমন ব্যাটিংটা অবাককরার মতোই। তবে রানে ফিরতেই হয়তো তিনি এ পন্থা বেছে নেন। অন্যদিকে মুমিনুলহক সৌরভের ব্যাট থেকে এসেছে ৪৩ রান। তিনিও পরের ব্যাটসম্যানদের সুযোগ দিতেঅবসর নিয়ে চলে যান সাজঘরে। সৌরভ খেলেন ৭৮ বল। এরপর দলের অধিনায়কের সাথে তরুণ সাব্বির রহমান রুম্মান জুটি বাঁধেন। মুশফিক ৩৩ ও সাব্বির ২৯ রানেঅপরাজিত থেকে নির্ধারিত ওভার শেষ করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.