পেলের বিরুদ্ধে মামলা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: তাদের মা একসময় দীর্ঘ, আলোচিত এক আইনি লড়াইয়ে নেমেছিলেন পেলের সাথে। সেই লড়াইয়ে পেলেকে হারিয়েও দিয়েছিলেন। মামলা করে পেলের কাছ থেকে পিতৃত্বের স্বীকৃতি আদায় করে নেয়া সেই সান্দ্রা রেজিনার সন্তানেরা এবার মামলা করলো ব্রাজিলের ফুটবল কিংবদন্তীর বিরুদ্ধে। একজনের বয়স ১৩ বছর, আরেকজনের ১৫।

পেলের মেয়ে রেজিনা মারা যান ২০০৬ সালে। ব্রাজিলীয় একটি পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, রেজিনার রেখে যাওয়া দু সন্তান উত্তরাধিকারসূত্রে পেলের কাছ থেকে ভরণপোষণের দাবি করে মামলা ঠুকে দিয়েছে। পেলের নাতিদের আইনজীবীর অভিযোগ, নাতিদের দায়দায়িত্ব নেননি পেলে। ২০১১ সালের পর নাতিদের সাথে একবারের জন্য দেখাও করেননি। এ অবস্থায় পেলের কাছে স্বাস্থ্যবীমা ও শিক্ষার খরচ বাবদ প্রত্যেকে ছয় হাজার ডলারসহ ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করেছে দু নাতি।  তবে মামলায় ক্ষতিপূরণের অঙ্কটা উল্লেখ করা হয়নি। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে আগামী মাসে শুনানির তারিখ নির্ধারণ করেছেন। একই সাথে প্রত্যেকে নাতিকে ৭৬০ ডলার দিতে পেলেকে নির্দেশ দিয়েছেন। দু নাতি দূরে থাকে, মেয়ে রেজিনাকেই একসময় স্বীকৃতি দেননি পেলে। স্বীকৃতি দেন এক দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর। ১৯৯১ সালের পিতৃত্বের স্বীকৃতি চেয়ে আদালতে মামলা ঠুকে দেন রেজিনা। তবে খুব সহজে স্বীকৃতিটা দেননি পেলে। ব্যাপারটা গড়ায় ডিএনএ পরীক্ষা পর্যন্ত। পরীক্ষায় নিশ্চিত হয়, রেজিনা পেলেরই সন্তান। আদালতের রায়ে মেয়ের স্বীকৃতি মিললেও পরবর্তী সময়েও বাবার স্নেহ বা আর্থিক সহায়তা কিছুই পাননি রেজিনা। সেই রেজিনা সাত বছর আগে চলে গেছেন পৃথিবীর মায়া ছেড়ে। তাই বলে মুক্তি পাননি পেলে। এতো বছর পর ব্রাজিলের ১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপ জয়ের নায়ককে আদালতে নিয়ে গেলেন রেজিনার দু ছেলে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *