পাকিস্তানের কাছে হেরে রূপা বাংলাদেশের মেয়েদের

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ৪ রানের জন্য ফসকে গেল সোনা জয়ের আশা জাগিয়েও শেষ পর্যন্ত সোনা জিততে পারলো না বাংলাদেশের মেয়েরা। ইনচনে এশিয়ান গেমস ক্রিকেটের বৃষ্টিবিঘ্নিত ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৪ রানে হেরে রূপা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো সালমাদের। তবে এটাই ইনচন এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের প্রথম কোনো পদক জয়। সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে ফাইনালে উঠে পদক নিশ্চিত করে রেখেছিলো বাংলাদেশের মেয়েরা। গতকাল শুক্রবার বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে জয়ের জন্য সাত ওভারে মাত্র ৪৩ রান দরকার ছিলো বাংলাদেশের। তবে ব্যাটিঙের চরম ব্যর্থতায় ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৮ রান করতে পারে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের মেয়েরা টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে ৯৭ রান করে। ফাহিমা খাতুনের বলে বোল্ড হওয়ার আগে পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ২৪ রান তোলেন বিসমাহ। এছাড়া আরো চার ব্যাটসম্যান দু অঙ্কে পৌঁছুলে ৬ উইকেট হারিয়ে লড়াই করার মতো সংগ্রহ দাঁড় করায় আগের আসরেও সোনা জেতা পাকিস্তান। বাংলাদেশের রুমানা আহমেদ ২টি, জাহানারা আলম, সালমা খাতুন ও ফাতিমা খাতুন ১টি করে উইকেট নেন। বাংলাদেশের ইনিংসের আগেই বৃষ্টি নামলে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৭ ওভারে ৪৩ রানের লক্ষ্য পায় সালমারা। বাংলাদেশের শুরুটা ছিলো স্বপ্ন দেখার মতোই। উদ্বোধনী জুটিতে বলে বলে রান তোলেন আয়েশা-রুমানা। ২.১ ওভারে ১৩ রান করার পর আয়েশা রহমান (৭) রান আউট হলে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। ২০ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ; এবার রুমানা (১০) রান আউট হন। শেষ ৩ ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের দরকার ছিলো মাত্র ১৪ রান; হাতে ছিলো ৮ উইকেট। কিন্তু এরপরই চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে সোনা জয়ের স্বপ্নটা মলিন হয়ে যায়।

বাংলাদেশ বড় ধাক্কাটি খায় অধিনায়ক সালমা খাতুন বিদায় নিলে। সাদিয়া ইউসুফের বলে মাত্র ১ রান করে বোল্ড হন সালমা। ৫ম ওভারের শেষ বলে ফারজানাকেও (১) সাজঘরে ফেরান সাদিয়া। শেষ ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের ৭ রান দরকার ছিলো। কিন্তু প্রথম বলেই নাদিয়া দারের বলে নাদিয়াকে ক্যাচ দেন নুজহাত তাসনিয়া। চতুর্থ বলে দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে শাহানাজ পারভীন রান আউট হন। শেষ দু বলে ৫ রানের প্রয়োজন মেটানো তো দুরের কথা, কোনো রানই তুলতে পারেননি পান্না ঘোষ ও শায়লা শারমিনরা। এর আগে ২০১০ সালের চীনের গোয়াঞ্জো এশিয়ান গেমসেও এ পাকিস্তানের সাথে হেরেই রূপা জিতেছিলো মেয়েরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *