পাকিস্তানি আম্পায়ার ভারতে ৫ বছর নিষিদ্ধ

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ২০১৩ আইপিএলে খেলোয়াড়দের পাশাপাশি তিনিও জড়িয়ে গিয়েছিলেন ফিক্সিঙে। এর জেরও টানতে হচ্ছে পাকিস্তানি আম্পায়ার আসাদ রউফকে। ৫ বছরের জন্য ভারতীয় এ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট তো বটেই, ভারতীয় ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট যেকোনো কার্যক্রমে তাকে নিষিদ্ধ করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।
আইপিএলের ষষ্ঠ আসরের গায়ে ম্যাচ ও স্পট ফিক্সিঙের কলঙ্ক আছে অনেক। এর আগে শ্রীশান্তসহ আরও দু ক্রিকেটার অঙ্কিত চাভান ও অজিত চান্ডিলাকে জেল খাটতে হয়েছে। গত মাসেই ওই আসরে ফিক্সিঙের সাথে জড়িত থাকায় চান্ডিলা আজীবন নিষিদ্ধ হয়েছেন। এবার ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা জুটল রউফের কপালেও। ২০১৩ সালের আইপিএল চলার সময়ে দিল্লি এয়ারপোর্টে সোনার অলঙ্কার ও নানা রকম ইলেকট্রনিক দ্রব্যভর্তি একটি ব্যাগ পাওয়া গিয়েছিলো, যার ওপরে ঠিকানা লেখা ছিলো আসাদ রউফের। পরে জানা যায় ওগুলো ছিল পাকিস্তানি আম্পায়ারকে দেওয়া এক জুয়াড়ির উপহার। ফিক্সিঙে জড়িত থাকার অভিযোগে আগেও শাস্তি পেয়েছেন রউফ। ওই বছরই আইসিসির আম্পায়ারদের এলিট প্যানেল থেকে বাদ দেয়া হয় তাকে। ২০১৪ সালের চ্যাম্পিয়নস লিগের আগে আইসিসির আম্পায়ার পদ থেকে নিজেই সরে দাঁড়ান রউফ।
সভাপতি শশাঙ্ক মনোহরের নেতৃত্বে বিসিসিআইয়ের একটি কমিটি দুর্নীতি ও অসদাচরণের দায়ে রউফের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। কমিটিতে অবশ্য রউফ উপস্থিত ছিলেন না। তবে এর আগে কয়েকবারই সংবাদ সম্মেলন করে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছিলেন পাকিস্তানি আম্পায়ার।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *