নবমবারের মতো বিশ্বকাপের মাঠে কোলকাতার দম্পতি

মাথাভাঙ্গা মনিটর: একবার,দুবার নয়, নবমবারের মতো বিশ্বকাপ ফুটবলের খেলা দেখতে মাঠেযাচ্ছেন ভারতের কোলকাতার এক বাঙালি দম্পতি। ৮১ বছর বয়সী পান্নালালচ্যাটার্জি আর ৭২ বছর বয়সী চৈতালী চ্যাটার্জির এই বিশ্বকাপ ফুটবল প্রেমেরশুরু তিন দশক আগে।ক্রিকেটভক্ত ভারতে ফুটবলের জন্য এমন প্রেমের কারণে সংবাদশিরোনাম হয়েছেন এ দম্পতি।ব্রাজিলের উদ্দেশে যাত্রাকালে পান্নালাল চ্যাটার্জি জানান, সম্ভবত এটাই মাঠে বসে আমারশেষ বিশ্বকাপ ফুটবল দর্শন হবে। তবে এবার ব্রাজিলের মাঠে বসে খেলা দেখারসুযোগ পেয়ে আমি খুবই খুশি।সাথে যোগ করলেন, ব্রাজিলে বিশ্বকাপ দেখারস্বপ্ন আমার সবসময়ই ছিলো। এটা ফুটবলের তীর্থভূমি।

এ দম্পতি মাঠে বসেফুটবলের বিশ্বকাপ দেখা শুরু করেন ১৯৮২ সালে। সেবার বিশ্বকাপ ফুটবলের আসরবসেছিলো স্পেনে। এ দম্পতিকে তাদের লন্ডনের এক বন্ধু খেলা দেখার টিকেটদিয়েছিলেন। মাঠে বসে বড় আসরের খেলা দেখার মজা সেই যে তারা পেয়েছিলেন, তা এখনো অব্যাহত আছে।ওই আসরে বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছিলো আর্জেন্টিনারদিয়াগো ম্যারাডোনা। সেই স্মৃতি রোমন্থন করে পান্নালাল চ্যাটার্জি বললেন, টুর্নামেন্টটা উত্তেজনায় ভরা ছিলো। তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, বিশ্বকাপফুটবলের কোনো আসর আর মিস করা যাবে না।স্পেনের পর ১৯৮৬ সালে মেক্সিকোয়বসা বিশ্ব ফুটবলের আসরও উপভোগ করতে যান পান্নালাল-চৈতালী দম্পতি।ম্যারাডোনার নেতৃত্বে আর্জেন্টিনা সেবার বিশ্বকাপ জিতেছিলো। আর্জেন্টিনা আরজার্মানির সেই ফাইনাল খেলার কথা আজও ভুলতে পারেন না এ দম্পতি।

সেই থেকে ম্যারাডোনার ভীষণ ভক্ত চৈতালী। তবে তার স্বামী ব্রাজিলেরকট্টর সমর্থক। বেশ গর্ব করে জানালেন, পেলে আমাদের সাথে ছবি তুলতে সম্মতিদিয়েছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *