দ্রগবাও বিদায় বললেন আন্তর্জাতিক ফুটবলকে

মাথাভাঙ্গা মনিটর: জাভি,ডেভিড ভিয়া,স্টিফেন জেরার্ডদের পথে হাঁটলেন দিদিয়ের দ্রগবাও।বিশ্বকাপ শেষেই আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় জানালেন আইভরিকোস্টের এ তারকাফুটবলার।২০০২ সালে আন্তর্জাতিক ফুটবলে অভিষেক হয়েছিলোদ্রগবার। তারপর থেকে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে খেলেছিলেন ১০৪টি ম্যাচ।করেছিলেন ৬৫টি গোল। আইভরিকোস্টের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকারশীর্ষেই আছে দ্রগবার নাম।২০০৬ সাল থেকে আইভরিকোস্টেরঅধিনায়কের দায়িত্বও পালন করেছেন দ্রগবা। তার নেতৃত্বেই ২০০৬ সালে আফ্রিকাননেশনস কাপের ফাইনালে উঠেছিলো আইভরিকোস্ট। সে বছরই তারা প্রথমবারের মতোবিশ্বকাপ খেলেছিলো দ্রগবার নেতৃত্বে। এরপর ২০১০ ও ২০১৪ সালের বিশ্বকাপেওআইভরিকোস্টের অধিনায়ক ছিলেন দ্রগবা। ২০০৬ ও ২০০৯ সালে আফ্রিকার বর্ষসেরাফুটবলারের পুরস্কারও উঠেছে এ তারকা স্ট্রাইকারের হাতে। গতকাল আন্তর্জাতিকফুটবল থেকে বিদায়ের ঘোষণা দিয়ে দ্রগবা বলেছেন, বিগত ১২ বছর ধরে জাতীয় দলের সাথেঅনেক আবেগ জড়িয়ে আছে। প্রথম থেকে শুরু করে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত,আমিআমার দেশকে নিজের সেরাটাই দিতে চেয়েছি। আট বছর ধরে জাতীয় দলের অধিনায়কত্বকরতে পেরে ও বিশ্ব ফুটবলে দেশের নাম উজ্জ্বল করতে পেরে আমি খুবই গর্বিত।ক্লাব ফুটবলে হয়তো আরও একটি মরসুম খেলবেন দ্রগবা। সম্প্রতি এক বছরের জন্য চুক্তি করেছেন পুরোনো ক্লাব চেলসির সাথে।

Leave a comment

Your email address will not be published.