দিনের শুরুটা শ্রীলঙ্কার শেষটা পাকিস্তানের

মাথাভাঙ্গা মনিটর: জমে উঠেছে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার আবুধাবি টেস্ট। সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দু দিন ছিলো পাকিস্তানের একচ্ছত্র আধিপত্ব্য। কিন্তু তৃতীয় দিনের শুরুতেই পাকিস্তানের রাশ টেনে ধরে শ্রীলঙ্কার বোলাররা। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসে করা ২০৪ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিন ৪ উইকেটে ৩২৭ রানে শেষ করেছিলো পাকিস্তান। দলকে বড় সংগ্রহের পথ দেখাচ্ছিলেন মিসবাহ-উল-হকরা। কিন্তু তৃতীয় দিনে শ্রীলঙ্কার বোলারদের দারুণ নৈপূণ্যে পাকিস্তান সেটা খুব বেশি বাড়াতে পারেনি। স্পিনার রঙ্গনা হেরাথের স্পিন তোপে বাকি ৬ উইকেটে মাত্র ৫৬ রান সংগ্রহ করে ৩৮৩ রানে অলআউট হয় তারা। ১৭৯ রানে পিছিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮৬ রান সংগ্রহ করে তৃতীয় দিন শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। ৬ উইকেট হাতে রেখে পাকিস্তানের চেয়ে তারা এখন ৭ রানে এগিয়ে আছে। দ্বিতীয় শুরু থেকে শ্রীলঙ্কা পাকিস্তানকে দারুন জবাব দিচ্ছিলো। দিমুথ করুনারত্নে ও কুশল সিলভার মধ্যকার উদ্বোধনী জুটি মাত্র ৪৬ রানে ভাঙলেও দ্বিতীয় উইকেটে করুনারত্নে ও কুমার সাঙ্গাকারা ৯৯ রানের জুটি গড়ে পাকিস্তানের জবাব দেন। দলীয় ১৪৬ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৫৫ রানে ফেরত পাঠান বিলাওয়াল ভাট্টি। শ্রীলঙ্কার দিনের সবচেয়ে বাজে মুহূর্ত ছিলো এটি। চার রান বাদে তিলকারত্নে দিলশানকে কোনো রান করতে না দিয়েই ফেরত পাঠান বিলাওয়াল। তখনও শ্রীলঙ্কা মোটামুটি স্বস্তিতে ছিলো। কিন্তু দিনের শেষ বলে জুনাইদ খান ব্যক্তিগত ৮১ রানে কুশল সিলভাকে আউট করে তাদের দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে দিয়েছেন। ২৪ রানে দিন শেষে অপরাজিত আছেন দিনেশ চণ্ডিমল।

এর আগে দ্বিতীয় দিনে ১০৫ রান অপরাজিত পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মিসবাহ শেষ উইকেট হিসেবে ১৩৫ রান করে আউট হন। মিসবাহ ছাড়া তৃতীয় দিন পাকিস্তানের আর কোনো ব্যাটসম্যান উইকেটে দাঁড়তে পারেনি। সর্বোচ্চ ১৪ রান আসে বিলাওয়াল ভাট্টির ব্যাট থেকে। শ্রীলঙ্কার স্পিনার হেরাথ ৯৩ রানে নেন ৩ উইকেট। শেষের দিকে পরপর ২ বলে সাঈদ আজমল ও রাহাত আলীকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিকের আশা জাগান হেরাথ। সংক্ষিপ্ত স্কোর: শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ২০৪, পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ৩৮৩ (ইউনুস ১৩৬, মিসবাহ ১৩৫, শেহজাদ ৩৮, হেরাথ ৩/৯৩, এরাঙ্গা ৩/৮০, লাকমল ২/৯৯)। শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংস: ১৮৬/৪ (সাঙ্গাকারা ৫৫, করুনারতেœ ২৪, সিলভা ৮১ চণ্ডিমল ২৪*, বিলাওয়াল ২/৬৫, জুনাইদ ২/৪৬), অবস্থা: শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেট হাতে নিয়ে ৭ রানে এগিয়ে আছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *