দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগ ও জামায়াতের প্রার্থী চূড়ান্ত

হারুন রাজু/হানিফ মণ্ড: দামুড়হুদাসহ দেশের সব উপজেলায় ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী আগামী ১৫ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ৮৩টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়েও শুরু হয়েছে আলোচনা। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি তথা ১৯ দল অংশ না নিলেও বেশ স্বতঃস্ফূর্তভাবেই তারা উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এ লক্ষ্যেই সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় নির্বাচনের মাঠ গরম করে তুলেছেন। এরই মধ্যে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাচনে আ.লীগ তথা মহাজোট এবং জামায়াতে ইসলামী তাদের একক প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। এখনও প্রার্থীর নাম ঘোষণার ক্ষেত্রে পিছিয়ে রয়েছে বিএনপি তথা ১৯ দলীয় জোট। শুরুতেই দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনী প্রচারণায় মাঠে ছিলেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাদুল ইসলাম আজাদ, দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, যুগ্মসম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান জাকারিয়া আলম, হাউলী ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হাজি সহিদুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. রফিকুল ইসলাম রান্টু, অ্যাড. আলমগীর হোসেন ও অ্যাড. আব্দুল কুদ্দুস। দলের কঠোর সিদ্ধান্ত ছিলো একক প্রার্থীর নাম ঘোষণার। সে লক্ষ্যেই জেলা আ.লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের হুইপ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আ.লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক হাজি আলী আজগার টগরসহ নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ১ ফেব্রুয়ারি উপজেলা অডিটরিয়ামে বর্তমান চেয়ারম্যান আজাদুল ইসলাম আজাদ, ভাইস চেয়ারম্যান আ.লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লাইলী আকবরের নাম চূড়ান্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিকে বিএনপি তথা ১৯ দলীয় জোটের মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন- সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা বিএনপির সভাপতি লিয়াকত আলী শাহ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, উপজেলা বিএনপির একাংশের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খাজা আবুল হাসনাত, দর্শনা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলাম, দামুড়হুদা সাবেক সদর ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল হাসান তনু। তবে এ নির্বাচনে দলের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হিসেবে গণ্য করা হবে বলেই মন্তব্য দলের নীতি-নির্ধারকদের।

সূত্র বলেছে, এরই মধ্যে উপজেলার কোথাও কোথাও বিএনপি তথা ১৯ দলের প্রার্থী চূড়ান্তের ক্ষেত্রে বৈঠকর মাধ্যমে কোনো কোনো সম্ভাব্য প্রার্থী সরে দাঁড়াচ্ছেন বলেও গুঞ্জন উঠেছে। আজকালের মধ্যে বিএনপির চূড়ান্ত প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হতে পারে। এছাড়া গত ২০ জানুয়ারি জেলা  জামায়াতে ইসলামীর এক বৈঠকে তাদের প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করা হয়। গতকাল শুক্রবার জামায়াতের উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি হাউলী ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে দর্শনা পৌর জামায়াতের আমির আব্দুল কাদেরের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। দিন যতোই ঘনিয়ে আসছে প্রার্থীদের পদচারণা ততোই বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এখন দেখার বিষয় বিএনপি থেকে কে চূড়ান্ত হচ্ছেন?

 

Leave a comment

Your email address will not be published.