তামিম অভিযোগ করলে বিসিবি ‌‌‌‘হুলুস্থুল’ বাধাবে

স্টাফ রিপোর্টার: কাউন্টি দল এসেক্স ছেড়ে তামিম ইকবালের হঠাৎ দেশে ফেরা নিয়ে তুমুল হইচই দেশের ক্রিকেটে। শুধু বাংলাদেশ কেন, ক্রিকেট বিশ্বেই আলোচনা হচ্ছে বিষয়টি নিয়ে। স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা কিছু শ্বেতাঙ্গ তরুণের বর্ণবাদী আচরণের শিকার হওয়ায় তামিম দেশে ফিরেছেন বলে খবর। যদিও তা অস্বীকার করে আসল কারণটি এখনো খুলে বলেননি তামিম। তবে গতকাল নাজমুল হাসান বলেছেন, তামিম যদি এটা নিয়ে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করে, তবে হুলুস্থুল ঘটিয়ে ছাড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

গত সোমবার ইস্ট লন্ডনের স্ট্রাটফোর্ডে তামিমের স্ত্রী কিছু শ্বেতাঙ্গ তরুণের বর্ণবাদী আচরণের শিকার হন বলে জানিয়েছেন বিসিবির দায়িত্বশীল কর্মকর্তা। বিষয়টি এসেক্সকে জানিয়ে পরদিনই সপরিবারে দেশে রওনা দেন তামিম। বাংলাদেশ দলের বাঁহাতি ওপেনার দেশে ফেরার কারণ হিসেবে ফেসবুক ও টুইটারে ‘ব্যক্তিগত কারণে’র কথা বলেছেন। তামিমের ব্যক্তিগত বিষয়কে সম্মান জানাচ্ছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল। তবে এ নিয়ে বিসিবির করণীয় নিয়ে তিনি গতকাল গুলশানে নিজ বাসভবনে সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘যখন ঘটনা প্রকাশ করতে চাই না, আমরা সাধারণত বলি ‘ব্যক্তিগত কারণে’। তামিম এটাকে ব্যক্তিগত বলে শেষ করতে চাচ্ছে। যা-ই ঘটুক, সে যেহেতু চায় না এটা জানাজানি হোক, আমার মনে হয় এতোটুকু সম্মান তাকে দেখানো উচিত। তবে সে যদি এটা নিয়ে আমাদের কাছে কখনো অভিযোগ করে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এটা নিয়ে হুলুস্থুল বাধাবে, কোনো সন্দেহ নেই।’ কিছু একটা ‘ঘটেছে’, এতে নিঃসন্দেহ হলেও বিষয়টিকে অবশ্য গুরুতর কিছু মনে করছেন না নাজমুল। গুরুতর যদি না-ই হবে বাঁহাতি ওপেনার কেন বিষয়টি খোলাসা করছেন না? বিসিবি প্রধানের যুক্তি, ‘এ ধরনের ঘটনা যদি ঘটে থাকে, তাহলে রিপোর্ট করা, থানায় যাওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। আমার ধারণা, হয়তো কোনো একটি ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু অত সিরিয়াস না, যতটা আমরা ভাবছি বা পত্র-পত্রিকায় যেভাবে এসেছে। তামিমের হয়তো ওখানে গিয়ে প্রাথমিকভাবে রিপোর্ট করার মতো অবস্থা ছিল না বা সে মনে করেছে দরকার নেই।’ অতোটা ‌‌‌‌‘সিরিয়াস’ ঘটনা না হলে তামিমও কি এভাবে দেশে ফিরে আসতেন? নাজমুল অবশ্য ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা রোধে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের কিছু পরামর্শ দিচ্ছেন, ‘আমাদের প্রত্যেক খেলোয়াড়কে অবশ্যই নিরাপত্তা দিতে হবে। এ ঘটনা নিয়ে বলছি না। এ ধরনের ঘটনা যদি ঘটে, বাংলাদেশের সব খেলোয়াড়কে বলছি, সঙ্গে সঙ্গে আমাদের যেন জানানো হয়। আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো।’

Leave a comment

Your email address will not be published.