ডাবল-সেঞ্চুরিতে র‌্যাঙ্কিঙের ষষ্ঠ স্থানে কুক

মাথাভাঙ্গা মনিটর: বার্মিংহামে দিবা-রাত্রির ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২৪৩ রানের ইনিংস খেলেছেন ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক। নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারে চতুর্থ এবং দিবা-রাত্রির ম্যাচে প্রথম ডাবল-সেঞ্চুরির স্বাদ পান তিনি। এমন বিধ্বংসী ইনিংসের সুবাদে ছয় ধাপ এগিয়ে আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিঙে ব্যাটসম্যানদের তালিকার ষষ্ঠ স্থানে উঠে এলেন কুক।

২০১৩ সালের পর ক্যারিয়ারের সেরা র‌্যাঙ্কি-এ উঠলেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। ২০১৩ সালের মার্চে ক্যারিয়ারের সেরা র‌্যাঙ্কি-এ পঞ্চম স্থানে উঠেছিলেন কুক। ৭৯৮ রেটিং নিয়ে বর্তমানে র‌্যাঙ্কি-এর ষষ্ঠ স্থানে কুক। পঞ্চম স্থানে থাকা ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির সাথে রেটিং ব্যবধানও কমে এসেছে। কোহলির রেটিং এখন ৮০৬। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩৯ রানে ২ উইকেট হারানোর পর কুকের সাথে তৃতীয় উইকেট জুটিতে ২৪৮ রান যোগ করেন অধিনায়ক জো রুট। দলপতি নিজেও টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৩তম সেঞ্চুরি তুলে ১৩৬ রানে ফিরেন। তাই র‌্যাঙ্কি-এ ১৪ রেটিং অর্জন করেছেন রুট। তারপরও অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের পেছনেই রয়েছেন রুট। ৯৪১ রেটিং নিয়ে র‌র‌্যাঙ্কি-এর শীর্ষে স্মিথ। আর ৯০৫ রেটিং নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রুট।

বোলারদের র‌্যাঙ্কি-এ কোনো পরিবর্তন হয়নি। বার্মিংহাম টেস্টে ইংল্যান্ডের দুই পেসার জেমস এন্ডারসন ও স্টুয়াট ব্রড একত্রে ১০ উইকেট শিকার করেন। এন্ডারসন-ব্রড ৫টি করে উইকেট নেন। এতে রেটিং বাড় লও দ্বিতীয়স্থানেই রয়েছে এন্ডারসন। শীর্ষে থাকা ভারতের স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজার সাথে এন্ডারসনের রেটিং ব্যবধান ৯। জাদেজা ৮৮৪ ও এন্ডারসনের রেটিং ৮৭৫।

সপ্তম স্থানেই আছেন ব্রড। ষষ্ঠ স্থানে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসো রাবাদার সাথে ব্রডের রেটিং ব্যবধান ৪। এই টেস্টে ৫ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হন ব্রড। এতে পেছনে পড়ে যান ইংলিশদের সাবেক খেলোয়াড় স্যার ইয়ান বোথাম। ব্রডের উইকেট শিকার ৩৮৪ এবং বোথাম উইকেট সংখ্যা ৩৮৩।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *