জোহানেসবার্গে রোমাঞ্চকর ড্র

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ৪৫৮ রানের ভীষণ কঠিন লক্ষ্যের পথে দৃঢ় পদক্ষেপে এগিয়ে যাচ্ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। ফাফ দু প্লেসি ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের দুটো দুর্দান্ত শতক জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলো তাদের। তবে চতুর্থ ইনিংসে বিশ্বরেকর্ড গড়ে ভারতকে হারাতে পারেনি স্বাগতিক দল। প্রথম টেস্ট শেষ হয়েছে অমীমাংসিতভাবে। দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর ৭ উইকেটে ৪৫০ রান। অর্থাৎ ৮ রানের জন্য জিততে পারেনি তারা। ২ উইকেটে ১৩৮ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামা দক্ষিণ আফ্রিকাকে দিনের পঞ্চম ওভারে প্রথম ধাক্কা দেন সামি আহমেদ। আলভিরো পিটারসেনকে বোল্ড করেন তিনি। আগের দিন শেষে ৭৬ রানে অপরাজিত পিটারসেন গত শনিবার কোনো রান করতে পারেননি। তবে জ্যাক ক্যালিসের সাথে দু প্লেসির ৫৪ রানের জুটিতে ধাক্কা সামলে ওঠে স্বাগতিক দল। জহির খান ক্যালিসকে (৩৪) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলার পর দারুণ এক জুটির জন্ম। ডি ভিলিয়ার্সের সাথে ডু প্লেসির ২০৫ রানের সেই জুটি জয়ের পথে এগিয়ে দিচ্ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকানদের। শেষ পানি-পানের বিরতির পর ১০৩ রান করা ডি ভিলিয়ার্সকে বোল্ড করে জুটিটা ভাঙেন ইশান্ত শর্মা। সামির করা পরের ওভারে জেপি ডুমিনিও বোল্ড হয়ে গেলে জয়ের স্বপ্নে উজ্জীবিত হয়ে ওঠে ভারত। কিন্তু ভার্নন ফিল্যান্ডারকে নিয়ে ঘুরে দাঁড়ান দু প্লেসি। জয়ের সুবাসও পাচ্ছিল দক্ষিণ আফ্রিকানরা। কিন্তু ঝুঁকিপূর্ণ একটি রান নিতে গিয়ে দু প্লেসি অজিঙ্কা রাহানের সরাসরি থ্রোয়ে রান আউট হয়ে গেলে আবার ম্যাচে ফেরে ভারত। দু প্লেসির ১৩৪ রানের অসাধারণ ইনিংসে ১৫টি চার। দু প্লেসির বিদায়ের পর ১৯ বলে ১৬ রান প্রয়োজন ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকার। শুরুতে বেশ আক্রমণাত্মক থাকলেও ফিল্যান্ডার আর ঝুঁকি নেননি। ডেল স্টেইনকে নিয়ে বাকি সময় কাটিয়ে দিয়েছেন তিনি। ২৬ ডিসেম্বর থেকে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট শুরু হবে ডারবানে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর: ভারত: ২৮০ (কোহলি ১১৯, রাহানে ৪৭; ফিল্যান্ডার ৪/৬১, মরকেল ৩/৩৪) ও ৪২১ (পুজারা ১৫৩, কোহলি ৯৬; ফিল্যান্ডার ৩/৬৮, ক্যালিস ৩/৬৮)| দক্ষিণ আফ্রিকা: ২৪৪ (স্মিথ ৬৮, ফিল্যান্ডার ৫৯; ইশান্ত ৪/৭৯, জহির ৪/৮৮) ও ৪৫০/৭ (পিটারসেন ৭৬, স্মিথ ৪৪, আমলা ৪, দু প্লেসি ১৩৪, ক্যালিস ৩৪, ডি ভিলিয়ার্স ১০৩, ডুমিনি ৫, ফিল্যান্ডার ২৫*, স্টেইন ৬*; সামি ৩/১০৭, ইশান্ত ১/৯১, জহির ১/১৩৫)

Leave a comment

Your email address will not be published.