জীবননগরে ফুটবল খেলার উদ্বোধনকালে জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস: খেলারধুলার মান বৃদ্ধিতে বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে

 

এমআর বাবু: জীবননগর স্টেডিয়ামে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোনালী অতীত ও এসএসসি ১৯৯৪ ব্যাচের মধ্যে এ প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার উদ্বোধনকালে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস বলেন, খেলাধুলায় বাংলাদেশ উন্নতি করছে। ক্রিকেটে আজ আমরা একের পর এক সফলতা পাচ্ছি। তিনি ফুটবলসহ সকল খেলার উন্নয়নে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। প্রধান অতিথি এ সময় সোনালী অতীতের খেলোয়াড়দের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন।

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমলের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ড. এবিএম মাহমুদুল হক, জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূরুল হাফিজ, যুগ্ম জেলা জজ তপন রায় ও পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। প্যাসিফিক এ-ওয়ান গ্রুপের সৌজন্যে জীবননগর সোনালী আতীত ও এসএসসি ১৯৯৪ ব্যাচ একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ খেলাটি শেষ পর্যন্ত গোল শূন্যভাবে শেষ হয়।

সোনালী অতীত দলের পক্ষে অধিনায়ক মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে মাঠে নামেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল, সিরাজুল ইসলাম, কাজী হাসানুজ্জামান বাবুল, শাহজাহান কবীর, মুন্সি নাসির উদ্দিন, কাজী মনিরুজ্জামান লাভলু, আব্দুস সামাদ, শহিদুল ইসলাম, আব্দুস সালাম ইশা, শাহজাহান সিরাজ, কাজী মামুনুজ্জামান আদুন, নাসির উদ্দিন, মীর জাহিদ, মিলন ও জসিম উদ্দিন। এসএসসি ১৯৯৪ ব্যাচের হয়ে খেলেন চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ড. এবিএম মাহমুদুল হক, যুগ্ম জেলা জজ তপন রায়, অধ্যাপক মাজহারুল ইসলাম, হাসানুজ্জামান টিটো, সাইফুল ইসলাম, মশিয়ার রহমান, ছোট বাবু, ফরজ, সবুর, মুন্সি খোকন, আব্দুল আজিজ, জুয়েল, রাজু, রুপমিয়া, আবুল হাশেম ও রিপন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *