জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখলো উইন্ডিজ

মাথাভাঙ্গা মনিটর: দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করলেন ব্রেন্ডন টেইলর। তবে অন্য ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি জিম্বাবুয়ে। মারলন স্যামুয়েল, শাই হোপ ও এভিন লুইসের ফিফটিতে দারুণ এক জয় তুলে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের সুপার সিক্সে নিজেদের প্রথম জয় পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাদের কাছে ৪ উইকেটে হেরে বিশ্বকাপ নিশ্চিতের প্রথম সুযোগ হারিয়েছে জিম্বাবুয়ে। টেইলরের দশম সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ২৯০ রানের লক্ষ্য দেয় জিম্বাবুয়ে। ৬ বল বাকি থাকতে সেই লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে গতকাল সোমবার টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি জিম্বাবুয়ে। ২৮ রানের মধ্যে হারায় দুই উইকেট। সপ্তম ওভারে চোট পেয়ে ক্রিজ ছাড়েন ওপেনার সলোমন মিরে। দুই অঙ্ক ছুঁয়ে ফিরে যান ক্রেইগ আরভিন। শন উইলিয়ামসের সঙ্গে ৭৬, সিকান্দার রাজার সঙ্গে ৭৯ রানের জুটিতে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যান টেইলর।

৪২তম ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ছিলো ২৩৪/৪। সেখান থেকে তিনশ ছাড়ানো রান সম্ভব ছিলো। কিন্তু শেষ দিকে নিয়মিত উইকেট হারিয়ে ২৮৯ রানে গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ১২৪ বলে ২০ চার ও দুটি ছক্কায় ১৩৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন টেইলর। শেষের দিকে আবার ক্রিজে ফেরা ওপেনার মিরে করেন ৪৫। ৩৫ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেরা বোলার জেসন হোল্ডার। কেমার রোচ ৩ উইকেট নেন ৫৫ রানে।

রান তাড়ায় দুই ছক্কায় ১৭ রান করে ফিরে যান ক্রিস গেইল। আরেক ওপেনার এভিন লুইস ৭৫ বলে খেলেন ৬৪ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংস। তৃতীয় উইকেটে হোপের সঙ্গে স্যামুয়েলসের ১৩৫ রানের জুটি সহজ জয়ের দিকে নিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। কিন্তু ২০ রানের মধ্যে চার উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচে ফিরে জিম্বাবুয়ে। ৮০ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৮৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলা স্যামুয়েলসকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন ব্লেজিং মুজরাবানি। ৭৬ রান করা হোপকে বিদায় করেন উইলিয়ামস। তিন বলের মধ্যে হোল্ডার ও শিমরন হেটমায়ারকে ফিরিয়ে দেন গ্রায়েম ক্রিমার। তবে অ্যাশলি নার্সকে নিয়ে এক ওভার বাকি থাকতেই দলকে জয় এনে দেন রোভম্যান পাওয়েল। তাদের ব্যাটে বিশ্বকাপের পথে আরেক ধাপ এগিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

‘এ’ ও ‘বি’ গ্রুপের সেরা তিনটি করে দল খেলছে সুপার সিক্সে। এই পর্বের সেরা দুই দল খেলবে ইংল্যান্ডে ২০১৯ বিশ্বকাপে। ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জিম্বাবুয়ে ও স্কটল্যান্ডের পয়েন্ট ৫ করে। আয়ারল্যান্ডের পয়েন্ট ৪। তিন ম্যাচ খেলা আফগানিস্তানের পয়েন্ট ২। সংযুক্ত আরব আমিরাতের শূন্য।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *