জাঁক-জমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গায় প্লান অনুর্ধ্ব-১৫ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

উদ্বোধনী দিনে যশোরের শুভ সূচনা

 

ইসলাম রকিব: জাঁক-জমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গায় ভৈরব অঞ্চলের প্লান অনুর্ধ্ব-১৫ মহিলা ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক দেলোয়ার হোসাইন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আব্দুর রহিম শাহ চৌধুরী ও  চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন। উদ্বোধনী মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের প্রতিনিধি জহুরুল হক সুমন, চুয়াডাঙ্গা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক তরুণ ক্রীড়া সংগঠক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, সাবেক জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান ও সহসম্পাদক শহিদুল কদর জোয়ার্দ্দার।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক দেলোয়ার হোসাইন চুয়াডাঙ্গায় ভৈরব অঞ্চলের ভ্যেনু হওয়ায় চুয়াডাঙ্গা জেলাবাসীর পক্ষ থেকে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলার ঐতিহ্যবাহী ফুটবল খেলার যে যৌলুস ছিলো তা আজ হারাতে বসেছে। দেশ এখন ফুটবলমুখি না হয়ে ক্রিকেটমুখি হয়ে পড়েছে। তার যথেষ্ট কারণও আছে। ক্রিকেটের মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্বময় একবাক্যে চেনা যায়। তবে ফুটবলে আমাদের সে অবস্থান তৈরি হচ্ছে না। বরং যা ছিলো তাও দিন দিন হারাতে হচ্ছে। তবে আমাদের সকলের চেষ্টা থাকবে ফুটবলকে এগিয়ে নেয়ার জন্য। জেলা প্রশাসক চুয়াডাঙ্গায় খেলতে আসা ভৈরব অঞ্চলের জেলাগুলোর খেলোয়াড়-কর্মকর্তাদের আপ্যায়ণ ও আথিতীয়তায়নের কোনো সমস্যা যেন না হয় সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলকে সজাক থাকার আহ্বান জানান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আব্দুর রহিম শাহ চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। সুন্দর সমাজ গঠনের স্বপ্ন দেখা ও সুস্থ-সবল জাতি গঠনে নারীদের খেলাধুলাকে উৎসাহিত করতে হবে। চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন বলেন, ফুটবল বাংলার খেলা, বাঙালির খেলা, আমাদের প্রাণের খেলা। এ খেলাকে আমরা সব সময় আমরা প্রিয় খেলা ভাবি। যেহেতু চুয়াডাঙ্গা জেলাকে ভৈরব অঞ্চলের ভেন্যুর মর্যাদা দিয়ে সম্মান্বিত করা হয়েছে। তাই চুয়াডাঙ্গার একজন মানুষ হিসেবে শান্তিপূর্ণভাবে এ আয়োজনকে স্বার্থক করা আমাদের সকলের নৈতিক দায়িত্ব। সেইসাথে সকলকে প্রতিদিন এ প্রতিযোগিতার খেলা দেখতে আসার জন্য অনুরোধ জানান চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র।

উদ্বোধনী দিনে নড়াইল জেলা দলকে ১-০ গোলে হারিয়ে যশোর জেলাদল শুভসূচনা করেছে। গতকাল শনিবার নির্ধারিত সময়ের ১ ঘণ্টা ১৫ মিনিট পর খেলা শুরু হয়। বিকেল ৩টায় খেলা শুরু হওয়ার পূর্বনির্ধারিত সময় থাকলেও খেলোয়াড়দের ডাক্তারি পরীক্ষা ও যাচায়-বাছায়ের জন্য বিকেল ৪টা ১৫ মিনিটের পরে উদ্বোধনী খেলা শুরু হয় বলে জানা গেছে। খেলার বাইলজ অনুযায়ী (৩৫+১০+৩৫) মিনিট খেলানো হয় বলে চুয়াডাঙ্গা জেলা ক্রীড়া সংস্থা নিশ্চিত করে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন আয়োজিত প্লান অনুর্ধ্ব-১৫ নকআউট ভিত্তিক খেলার উদ্বোধনী দিনে ভৈরব অঞ্চলের খেলায় মুখোমুখি হয় যশোর ও নড়াইল জেলা দল। দেখতে অপেক্ষাকৃত ছোট আকৃতির নড়াইল জেলাদলের খেলোয়াড়রা প্রতিদ্বন্বিতাপূর্ণ খেলা খেলে প্রথমার্ধ গোল শূন্য রাখলেও দ্বিতীয়ার্ধের ১৯ মিনিটে যশোর জেলা দলের ৯ নং জার্সিধারী খেলোয়াড়ার খাদিজাতুল কবরার একমাত্র গোলে এগিয়ে যায় যশোর। শেষ পর্যন্ত আর কোনো গোল না হওয়ায় যশোর ১-০ গোলে নড়াইল জেলাদলকে হারিয়ে শুভসূচনা করে। আজ একই মাঠে মুখোমুখি হবে খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলা দল। গতকালের খেলাটি পরিচালনা করেন আলী হোসেন, জসিম উদ্দীন সাগর, রবিউল ইসলাম ও ইকতিয়ার আহম্মেদ।

গতকাল শনিবার খেলা উদ্বোধনের সময় চুয়াডাঙ্গা রেলপাড়ার কৃতী ফুটবলার মরহুম আমিনুল ইসলাম জোয়ার্দ্দারের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

উল্লেখ্য, ২৭ অক্টোবর খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলা দল, ২৮ অক্টোবর চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলা দল এবং ২৯ অক্টোবর কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহ জেলা দল মুখোমুখি হবে। চূড়ান্ত খেলা হবে ১ নভেম্বর।

এদিকে নড়াইল জেলা দলের কোচ কাত্তিক দাস যশোর জেলা দলের দু খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, যশোর জেলা দলের ১১ নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা দলের নিয়মিত খেলোয়াড় ও ১৪ নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় সবুরা বিবাহিতা। লিখিত অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয় যশোর জেলা দলের অধিকাংশ খেলোয়াড়ের বয়স ১৫ বছরের উর্ধ্বে। গতকাল শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত লিখিত অভিযোগের নিষ্পত্তির বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *