চুয়াডাঙ্গায় ৪৬তম জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

চ্যাম্পিয়ন ও রানারআপ দলের মধ্যে ট্রফি বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার: ৪৬তম বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা-২০১৭’র সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেলে স্থানীয় চুয়াডাঙ্গা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় খেলা শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানারআপ দলের খেলোয়ারদের মধ্যে সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান  আসাদুল হক বিশ্বাস প্রধান অতিথি হিসেবে পুরস্কার তুলে দেন।

এদিকে, আজ মঙ্গলবার থেকে স্থানীয় চুয়াডাঙ্গা স্টেডিয়াম জেলা পর্যায়ের জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা শুরু হবে। সদর উপজেলা স্কুল ও মাদরাসা ক্রীড়া সমিতির আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ই্উএনও) মৃনাল কান্তি দে সভাপতিত্ব করেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিকাশ কুমার সাহা। বিশেষ অতিথি হিসেবে সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজিজুল হক হযরত ও কহিনুর বেগম উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালনা কমিটির (এসএমসি) সভাপতিবৃন্দ, প্রধান শিক্ষক ও ক্রীড়া শিক্ষক এবং ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন, শিক্ষা অফিসার সোহেল আহমেদ ও ক্রীড়া শিক্ষক ইসলাম রকিব।

গত ২৬ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ৪৬তম বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বালক ফুটবলে চুয়াডাঙ্গা একাডেমি চ্যাম্পিয়ন ও হিজলগাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রানারআপ হয়েছে। বালিকা ফুটবলে চুয়াডাঙ্গা আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং ডিঙ্গেদহ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় রানারআপ হয়েছে। বালক কাবডি প্রতিযোগিতায় খাড়াগোদা মাধ্যমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং কাথুলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় রানারআপ হয়েছে। বালিকা কাবাডি প্রতিযোগিতায় আলোকদিয়া রোমেলা খাতুন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় রানারআপ হয়েছে। বালক হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতায় নীলমণিগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং চুয়াডাঙ্গা একাডেমি রানারআপ হয়েছে। বালিকা হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতায় চুয়াডাঙ্গা ঝিনুক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং আলোকদিয়া রোমেলা খাতুন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় রানারআপ হয়েছে। এছাড়া, ১২টি শ্রেণিতে সাঁতার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় শ্রেষ্ঠ দুজন খেলায়ারকে পুরস্কৃত করা হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আসাদুল হক বিশ্বাস বলেন, ‘মন ও দেহ সুস্থ রাখতে হলে খেলাধূলার কোনো বিকল্প নেই। প্রতিযোগিতায় জয়-পরাজয় থাকবেই। যারা বিজয়ী হয়েছে তাদেরকে অভিনন্দন জানাই। যারা এবার ভালো ফল করতে পারেনি তারা কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে আগামীতে চ্যাম্পিয়ন হবে আশা করবো।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৃনাল কান্তি দে বলেন, ‘ছাত্র-ছাত্রীরা মাদক ও বাল্যবিয়েকে না বলতে হবে। বাল্যবিয়ে সমাজের বড় অভিশাপ। এসব থেকে সকলকে দূরে থাকতে হবে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *