চুয়াডাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা ফুটবলের ফাইনাল সম্পন্ন

বালক বিভাগে আলমডাঙ্গা ও বালিকা বিভাগে দামুড়হুদা উপজেলা চ্যাম্পিয়ন

 

ক্রীড়া প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার পুরস্কার বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। ফাইনালে বালক বিভাগে আলমডাঙ্গা উপজেলার চিৎলা ইউনিয়নের চিৎলা-রুইথনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১-০ গোলে সদর উপজেলার তালতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। বালিকা বিভাগে জীবননগর আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে ৫-০ গোলে হারিয়ে দামুড়হুদা উপজেলার আদর্শ গুচ্ছগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বালক-বালিকা বিভাগের ফাইনাল খেলা শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানারআপ দলের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মুক্তার হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র জাতীয় ক্রীড়া সংগঠক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, এক সময় ফুটবল খেলা অত্যন্ত জনপ্রিয় খেলা ছিলো। মাঠে দর্শকও থাকতো ভরপুর। কিন্তু বর্তমানে খেলাপ্রেমী দর্শকরা অধিকাংশই ঝুকছে ক্রিকেটের দিকে। ফুটবলমাঠে এখন আর আগের মতো দর্শক আসতে চায় না। খেলার মানও  আস্তে আস্তে অবনতির দিকে যাচ্ছে। তারপরও চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে ফুটবলের হারানো গৌরব ফিরে পেতে। তাই তো তৃণমূল পর্যায় থেকে ফুটবলার বাছাই ও তৈরির জন্য সরকারিভাবে যে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে তা প্রশংসার দাবীদার।

তিনি আরো বলেন, খেলার মাধ্যমে নিজেকে যতো সহজে মেলে ধরা যায় অন্য কোনো মাধ্যমে তা সম্ভব নয়। এছাড়া খেলাধুলা শরীর মনকে সুস্থ ও সবল রাখে। লেখাপড়ায় বাড়তি আগ্রহ জাগায়।  বিশেষ অতিথি চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র বলেন, খেলায় হারজিত থাকবে। তাই পরাজয়ে মন খারাপ করলে চলবে না। পরাজয় দিয়ে পুনরায় জয়ের ভীত রচনা করতে হবে। বিশেষ করে বর্তমান সরকার দেশ এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে একই সাথে ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েদেরকে সমান সুযোগ দিয়ে তাদেরকে সম্মানিত করেছে। সরকারের এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে দেশের জন্য আজকের কিশোর-কিশোরীরা অবশ্যই ভালো কিছু বয়ে নিয়ে আসবে।

বালক বিভাগের চ্যাম্পিয়ন দলের ট্রফি গ্রহণ করেন চিৎলা ইউপি চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান ও খেলোয়াড় কর্মকর্তারা। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর বেগম, চুয়াডাঙ্গা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সকল সদস্য, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা ও জেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষকাগণ। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন মতিয়ার রহমান।

Leave a comment

Your email address will not be published.