ক্লাসিকো খেলা হচ্ছে না নেইমারের

মাথাভাঙ্গা মনিটর: নেইমার এল ক্লাসিকোতে খেলতে পারবেন, নাকি পারবেন না-পুরো ফুটবল বিশ্বই যেন প্রশ্নটির উত্তর শোনার অপেক্ষায় ছিলো। ব্রাজিলের এই ফরোয়ার্ডের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে স্পেনের সর্বোচ্চ ক্রীড়া আদালতে আপিল করেছিলো বার্সেলোনা। তাদের সিদ্ধান্ত কী হয়, এ নিয়ে চলছিলো জল্পনা-কল্পনা। কিন্তু সব আলোচনার অবসান ঘটিয়েছে বার্সেলোনাই। রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচের জন্য দেওয়া ১৯ সদস্যের দলে নেইমারকে রাখেননি বার্সা কোচ লুইস এনরিকে। বার্সা এর আগে জানিয়েছিলো, বার্নাব্যু-যাত্রায় নেইমারও দলের সঙ্গী হবেন। গতকাল রাতের এল ক্লাসিকোর আগে এ নিয়ে মাঠের বাইরে উত্তাপও ছড়াচ্ছিলো খুব। এ নিয়ে আইনের ঘোরপ্যাঁচও ছিলো। তবে নিষিদ্ধ নেইমারকে ফেরানোর লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত হাল ছেড়ে দিয়েছে বার্সা। নেইমার এই মুহূর্তে লা লিগায় তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটাচ্ছেন। লা লিগা কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে করা বার্সার আবেদন নাকচ করে দিয়েছে। এরপরই নিয়ম অনুযায়ী বার্সা দ্বারস্থ হয়েছে স্পেনের ক্রীড়া আদালতের (টিএডি)। বার্সার আইনজীবীদের দাবি, পরের শুক্রবার আসার আগ পর্যন্ত যদি টিএডি কোনো রায় না দেয়, আইন অনুযায়ী তখন পর্যন্ত নেইমারের নিষেধাজ্ঞা স্থগিত থাকবে। ফলে এর মধ্যে নেইমারের খেলতে কোনো বাধা নেই। টিএডি রায় না দিলে নেইমার খেলতে পারবেন, এই হিসাব করেই নেইমারকে বার্নাব্যুতে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে ভাবছিলো বার্সা।
তবে এই সুযোগে নিয়ে বার্সা যদি নেইমারকে খেলিয়ে ফেলত, এতেও দেখা দিত আইনের আরেক জটিলতা। পরে টিএডির রায় বার্সার বিরুদ্ধে গেলে কী হতো? নিষিদ্ধ খেলোয়াড়কে কোনো ম্যাচ খেলানোর ফল হচ্ছে ওই ম্যাচে যে দলই জিতুক না কেন, প্রতিপক্ষ দলকে জয়ী ঘোষণা করা হয় একটা নির্দিষ্ট গোল স্কোরে।

এ আইনের কথা মাথায় রেখেই হয়তো বার্সেলোনা ঝুঁকিটা নিতে চায়নি। নেইমারকে তাই আপাতত এল ক্লাসিকোতে খেলানো হচ্ছে না। তবে বার্সা তাঁকে লিগের পরের ম্যাচে পাওয়ার আশা এখনো ছাড়েনি বলেই মনে হচ্ছে। তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা দুই ম্যাচে কমে এলেও তো লাভ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *