কোহলি ঝড়ে সমতায় ভারত

মাথাভাঙ্গা মনিটর: আবার বিরাট কোহলির সৌজন্যে ‘বিরাট’ রান তাড়া করে জয় পেয়েছে ভারত। ষষ্ঠ ওয়ানডেতে ৩৫০ রান তাড়া করে অস্ট্রেলিয়াকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ৭ ম্যাচের সিরিজে ২-২ সমতা নিয়ে এসেছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।

গত ১৬ অক্টোবর জয়পুরে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৩৫৯ রান তাড়া করতে নেমে রোহিত শর্মার অপরাজিত ১৪১, শিখর ধাওয়ানের ৯৫ ও কোহলির ৫২ বলে অপরাজিত ১০০ রানের ঝড়ো ইনিংস ৯ উইকেটের সহজ জয় এনে দিয়েছিল ভারতকে। টানা দু ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হওয়ার পর গতকাল বুধবার নাগপুরের বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামেও জ্বলে ওঠেন এ তিন জন। রোহিত-ধাওয়ানের ১৭৮ রানের উদ্বোধনী জুটি জয়ের পথে এগিয়ে দেয় বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। ৩০তম ওভারে ৮৯ বলে ৭৯ রান করে বিদায় নেন রোহিত।

জয়পুরে ৫ রানের জন্য শতক না পেলেও গতকাল বুধবার তিন অঙ্ক স্পর্শ করতে ভুল হয়নি ধাওয়ানের। ১০২ বলে ১১টি চারসহ ঠিক ১০০ রান করে আউট হন এ বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। এটা তার চতুর্থ ওয়ানডে শতক। ধাওয়ানের বিদায়ের পর আরো চওড়া হয়ে ওঠে কোহলির ব্যাট। ৪৩তম ওভারে সুরেশ রায়না ও যুবরাজ সিংকে ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে উজ্জীবিত করে তুলেছিলেন মিচেল জনসন। কিন্তু অদম্য কোহলির সাথে পেরে ওঠেনি অতিথিরা। জয়পুরে ওয়ানডেতে ভারতের পক্ষে দ্রুততম শতকের (৫২ বলে) রেকর্ড গড়েছিলেন কোহলি। শতক করেন ৬১ বলে। মাত্র ৬৬ বলে অপরাজিত ১১৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে চার ১৮টি, ছক্কা একটি। ওয়ানডেতে এটা কোহলির সপ্তদশ ও এই সিরিজে দ্বিতীয় শতক।

ভারতের মতো অস্ট্রেলিয়ার পক্ষেও দুজনের শতক। টস হেরে ব্যাট করতে নামা অস্ট্রেলীয়দের বিশাল সংগ্রহ এনে দিতে সবচেয়ে অবদান জর্জ বেইলির ১১৪ বলে ১৩টি চার ও ৬টি ছক্কায় সাজানো ১৫৬ রানের অধিনায়কোচিত ইনিংসের। শেন ওয়াটসনের ব্যাট থেকে আসে ৯৪ বলে ১০২ রান। গতকাল বুধবার একটি রেকর্ডও গড়েছেন বেইলি। এ সিরিজে এখন তার রান ৪৭৪। কোনো দ্বি-পক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজে একজন অধিনায়কের এটাই সর্বোচ্চ রান। ২ নভেম্বর সপ্তম ও শেষ ওয়ানডে হবে ব্যাঙ্গালোরে। সংক্ষিপ্ত স্কোর: অস্ট্রেলিয়া: ৫০ ওভারে ৩৫০/৬ (ওয়াটসন ১০২, বেইলি ১৫৬। ভারত: ৩৫১/৪ (ধাওয়ান ১০০, কোহলি ১১৫*। ম্যাচ সেরা: বিরাট কোহলি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *