কিশোরী ক্রিকেটারকে যৌন নিপীড়ন : কোচ কারাগারে

 

স্টাফ রিপোর্টার: কিশোরী ক্রিকেটারকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে দিনাজপুরে ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠুকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দিনাজপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিশ্বনাথ মণ্ডলের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন মিঠু। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। যৌন নিপীড়নের শিকার এক কিশোরী ক্রিকেটারের বাবা গত ৮ জুলাই দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় কোচ মিঠুর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, আমার নাবালিকা মেয়ে গত তিন বছর ধরে দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য ও প্রচেষ্টা ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের কোচ আবু সামাদ মিঠুর অধীনে দিনাজপুর গোর-ই শহীদ বড় মাঠে ক্রিকেট অনুশীলন করে আসছে। গত ১ জুন বিকালে অনুশীলন করার সময় আমার মেয়ে বাম পায়ে বলের আঘাত পায় ও পা ফুলে যায়।

তখন অন্য এক প্রমীলা ক্রিকেটার আমার মেয়েকে বড়মাঠে অবস্থিত স্পোর্টস ভিলেজে নিয়ে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত পায়ে বরফ লাগিয়ে দেয়। এ সময় ক্রিকেট কোচ মিঠু স্পোর্টস ভিলেজে এসে সহযোগী প্রমীলা ক্রিকেটারকে সুকৌশলে মাঠে চলে যেতে বলে। ওই ক্রিকেটার মাঠে চলে গেলে মিঠু আমার মেয়েকে একাকী পেয়ে যৌন কামনা চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে জড়িয়ে ধরে। এতে আমার মেয়ে বাধা দিলে তাকে বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দেয়। এসময় আমার মেয়ে আঘাতপ্রাপ্ত পায়ের ব্যথায় ছটফট করে। এরপর মিঠু জোর করে আমার মেয়ের শ্লীলতাহানী ও যৌন নিপীড়ন করে।

Leave a comment

Your email address will not be published.