ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে সমতা আনলো দক্ষিণ আফ্রিকা

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সিরিজের দ্বিতীয় টুয়েন্টি টুয়েন্টি ম্যাচে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে ৩ রানে হারিয়েছে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-১ সমতা আনলো প্রোটিয়ারা। সিরিজের প্রথম ম্যাচ ইংল্যান্ড জিতেছিলো ৯ উইকেটে। টনটনে এবার টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। শুরুটা ভালো করতে পারেনি তারা। দলীয় ২৫ রানে প্রথম উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা। ৮ বলে ৭ রান করে আউট হন রেজা হেনড্রিক্স। দ্বিতীয় উইকেটে বড় জুটি গড়ার পথেই ছিলেন উইকেটরক্ষক মাঙ্গলিসো মসলে ও ওপেনার জন জন স্মুটস। কিন্তু মোসলের বিদায়ে ৩২ রানে বেশি যোগ হয়নি জুটিতে। এসময় দক্ষিণ আফ্রিকার রান ছিলো ৪৬ বলে ৫৭ রান। রান তোলার গতি মন্থর থাকায় চার নম্বরে ব্যাট হাতে নেমেই মারমুখী হয়ে উঠেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় ২০ বলে ৪৬ রান করেন তিনি। ওপেনার স্মুটসের সাথে তৃতীয় উইকেটে ২০ বলে ৩৯ রান যোগ করেন ডি ভিলিয়ার্স। স্মুটস ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৫ বলে ৪৫ রান করেন।স্মুটস ও ডি ভিলিয়ার্সের পর দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে বলার মত স্কোর করেছেন ফারহান বেহারদিয়ান। ২টি করে চার ও ছক্কায় ২১ বলে ৩২ রান করেন বেহারদিয়ান। ফলে ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৭৪ রানের বড় সংগ্রহ পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ইংল্যান্ডের টম কুরান ৩টি উইকেট নেন। জবাবে দলীয় ১৫ রানে ওপেনার স্যাম বিলিংসকে হারায় ইংল্যান্ড। বিলিংস ৩ রান করে ফিরে যাওয়ার পর দ্বিতীয় উইকেটে দারুণ এক জুটি গড়েন আরেক ওপেনার জেসন রয় ও তিন নম্বরে নামা জনি বেয়ারস্টো। ৭০ বলে দু’জনের ১১০ রানের জুটিতে নিশ্চিত জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে ইংল্যান্ড। কিন্তু দলীয় ১৩৩ রানের মধ্যে রয় ও বেয়ারষ্টো ফিরে গেলে লড়াইয়ে ফিরে দক্ষিণ আফ্রিকা। বেয়ারস্টো ৩৭ বলে ৪৭ ও রয় অবসট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড আউট হবার আগে ৯টি চার ও ১টি ছক্কায় ৪৫ বলে ৬৭ রান করেন। ১৫ ওভারের পর ইংল্যান্ডের কোনো ব্যাটসম্যানই দায়িত্ব নিয়ে খেলতে না পারায় ৬ উইকেটে ১৭১ রান পর্যন্ত যেতে পারে ইংলিশরা। এতে ম্যাচ জিতে সিরিজে সমতা আনে দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৮ রানে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিস মরিস। কার্ডিফে আগামীকাল অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচ।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.