আর্সেনালের জয়ে ওজিলের গোল

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ক্লাবের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় হয়ে এসে আর্সেনালের জার্সিতে সুদর্শনীয় প্রথম গোল পেলেন মেসুত ওজিল। গত মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে নাপোলির বিপক্ষে ০-২ গোলে গানারদের জেতাতে দারুণ অবদান রেখেছেন জার্মান তারকা। টানা দ্বিতীয় জয়ে নাপোলি ও বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের চেয়ে তিন পয়েন্টে এগিয়ে থেকে ‘এফ’ গ্রুপের শীর্ষে আর্সেনাল। এদিন রবার্ট লেভানডস্কির জোড়া গোলে মার্সেইর বিপক্ষে টুর্নামেন্টের প্রথম জয় পেয়েছে ডর্টমুন্ড। প্রথম ম্যাচে তারা ২-১ গোলে হেরেছিলো নাপোলির কাছে। আর টানা দুটি ম্যাচ হারল মার্সেই।

প্রধান কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার ১৭তম বার্ষিকী ছিলো আর্সেনাল কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারের। আত্মবিশ্বাসী এ কোচের বিশ্বাস, এবারের ইউরোপ সেরার ট্রফি তাদের ঘরে উঠলেও উঠতে পারে। ওয়েঙ্গারের বিশ্বাস এখনও মজবুত রেখেছে শিষ্যরা। এমিরেটস স্টেডিয়ামে সিরি আ’র দ্বিতীয় দলের বিপক্ষে আট মিনিটে এগিয়ে যায় গানাররা। ওলিভার গিরোড আলতো করে বুক দিয়ে বল ঠেকিয়ে ফ্লিক করেন অ্যারন রামসের কাছে। তিনি বল পাঠিয়ে দেন ওজিলের কাছে। আর সফলভাবে নাপোলির জালে বল পাঠান রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক জার্মান তারকা। ১৫ মিনিটে দ্বিতীয় গোলটিতেও এ প্লেমেকারের অবদান আছে। নাপোলি নিজেদের বিপদসীমা থেকে বল দূরে পাঠাতে চাইলে ওজিলের দখলে চলে যায়। তিনি পাস দেন গিরোডকে। সফলভাবে নাপোলি গোলরক্ষক পেপে রেইনাকে পরাস্ত করেন ফরাসি তারকা। ওজিলের পারফরমেন্সে মুগ্ধ গিরোড, তার সাথে খেলতে পারা দারুণ। মাঠে তার সাথে আমার ভালো সম্পর্ক আছে, ভালো বোঝাপড়াও আছে।’

অপর ম্যাচে ডর্টমুন্ড ডাগআউটে পায়নি তাদের কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপকে। নাপোলির কাছে ২-১ গোলে হারের ম্যাচে মেজাজ বিগড়ে যাওয়ায় রেফারির সাথে খারাপ আচরণ করেছিলেন। এক ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয় তাকে। দর্শকদের সারি থেকে খেলা দেখছিলেন ক্লপ। কোচকে ছাড়াও উড়ন্ত জয় পেয়েছে গতবারের রানার্সআপরা। লেভানডস্কি ১৯ মিনিটে উদ্বোধনী গোলটি করেন। পেনাল্টি থেকে ৮০ মিনিটে তৃতীয় গোলটিতেও অবদান রেখেছেন এ তারকা। মাঝে ৫২ মিনিটে ফ্রিকিক থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেছিলেন মার্কো রুস।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *