আবার হারলেন মুশফিকরা!

স্টাফ রিপোর্টার: বলা হচ্ছে প্রস্তুতি ম্যাচ। বলতে পারেন প্রীতি ম্যাচও। তবে হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই। বরং বাংলাদেশ জাতীয় দল বনাম ‘এ’ দলের তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুটো ম্যাচই বড় এক বার্তা হয়ে এলো মুশফিকদের জন্য। পর পর দুটো প্রীতি ম্যাচ হেরে এখন অপ্রীতিকর অবস্থায় মুশফিকরা! সিরিজে পরাজয় তো হয়েই গেছে, এখন তারা রীতিমতো ধবলধোলাইয়ের লজ্জার সামনে! গত দিনের মতো গতকালও শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে নাসির হোসেনের ‘এ’ দলের হার মানতে হলো মুশফিকের দলকে। গতপরশু ১২ রানে জেতা নাসিরের দল গতকাল ৬ উইকেট আর ৯ বল বাকি থাকতেই ছুঁয়েছে ১৬৮ রানের লক্ষ্য। বলা যায়, এক নাসিরের কাছেই হেরেছেন মুশফিকরা। বল হাতে ২১ রান দিয়ে নিয়েছেন দুই উইকেট। এরপর নাসির ব্যাট হাতে রীতিমতো কচুকাটা করেছেন জাতীয় দলের বোলারদের। ৩১ বলে করেছেন ৬২ রান। এর মধ্যে বাউন্ডারি থেকেই এসেছে ৪৬ রান (৭টি চার, ৩টি ছক্কা)!

১৬৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে ইনিংসের শুরুতে পর পর দুই ওভারে রুবেল হোসেনের জোড়া আঘাতে ‘এ’ দলের দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস (১৬) ও জরুহুল ইসলাম (৬) ফিরে যাওয়ায় বেশ বিপাকেই পড়ে ‘এ’ দল। এরপর দলকে পথ দেখান মিঠুন আলী (৩৭) ও মমিনুল হক (২৪)। এ দুজনের তৃতীয় উইকেটে ৫৫ রানের জুটি ভাঙেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। দলীয় ৮৪ রানের মাথায় মমিনুলকে ফেরান তিনি। কিছুক্ষণ পর আল আমিনের শিকার হয়ে ফেরেন মিঠুন আলীও। ১০ ওভারে ২ উইকেটে ৮৪ রান তুলে ফেলা ‘এ’ দলের জন্য এটি ছিলো ক্ষণিকের আঘাতমাত্র। এরপর জাতীয় দলের বোলারদের কড়া শাসনে নাসির দলকে নিয়ে যান জয়ের বন্দরে। সাব্বির রহমানের সাথে গড়ে তোলা অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম জুটিতে আসে ৭৯ রান। সোহাগ গাজীর করা ১৬তম ওভারেই আসে ২২ রান। সাব্বির অপরাজিত ছিলেন ১৫ রানে। জাতীয় দলের ইনিংসটি ভদ্রস্থ হলেও জয়ের জন্য যে যথেষ্ট ছিলো না, সেটিই প্রমাণ করে দিলেন নাসির। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি ১৪ ডিসেম্বর।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *